পাতা:মানসী - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/২৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।
২৭
বিরহানন্দ


মুছালে দুখনীর  দুখিনীর  আঁখিটি
জাগিত মনে ত্বরা  দয়া-ভরা  তোর সুখ।

সারাটা দিনমান  রচি গান  কত-না,
তােমার পাশে রহি  যেন কহি  বেদনা।
কানন মরমরে  কত স্বরে  কহিত,
ধ্বনিত যেন দিশে  তােমারি সে  রচনা।
সতত দূরে কাছে  আগে পাছে  বহিত
তােমারি যত কথা  পাতা-লতা  ঝরনা।

তােমারে আঁকিতাম,  রাখিতাম  ধরিয়া
বিরহ ছায়াতল  সুশীতল  করিয়া
কখনাে দেখি যেন  ম্লান-হেন  মুখানি,
কখনাে আঁখিপুটে  হাসি উঠে  ভরিয়া।
কখনাে সারা রাত  ধরি হাত  দুখানি
রহি গাে বেশবাসে  কেশপাশে  মরিয়া।

বিরহ সুমধুর  হল দূর  কেন রে।
মিলনদাবানলে  গেল জ্বলে  যেন রে।
কই সে দেবী কই,  হেরো ওই  একাকার—
শ্মশানবিলাসিনী  বিবাসিনী  বিহরে।
নাই গাে দয়ামায়া,  স্নেহছায়া  নাহি আর—
সকলি করে ধু ধু,  প্রাণ শুধু  শিহরে।

জ্যৈষ্ঠ ১৮৮৭