পাতা:মুর্শিদাবাদের ইতিহাস-প্রথম খণ্ড.djvu/৩৭৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

তৃতীয় অধ্যায়। \סיכס সৈয়দ মঞ্জস্ব সেই ধর্শেরও রসাস্বাদ করিয়াছিলেন। তাহার রচিত স্বনার স্বনার পদ বৈষ্ণব গ্রন্থে দেখিতে পাওয়া যায় । তাহাদের ভাব ও রচনা দেখিয়া চমৎকৃত হইতে হয়। ভাষা এরূপ প্রাঞ্জল ও সুললিত যে, পদগুলিকে সহসা উত্তর পশ্চিম দেশবাসী মুসলমান ফকীরের রচিত বলিয়া বুঝা যায় না, কোন যাঙ্গালী ভক্তের আবেগময় হৃদয়ের কথা বলিয়াই প্রতীত হইয়া থাকে। মৰ্ত্ত জার এইরূপ উদার ধৰ্ম্মভাব ছিল যে, মুসলমানেরা তাহাকে ফকীর, তান্ত্রিকেরা সাধক ও বৈষ্ণবের এক জন প্রসিদ্ধ ভক্ত বলিয়া মনে করিতেন। হিন্দু মুসলমান উভয় ধৰ্ম্মাবলম্বী জনগণ র্তাহার প্রতি সমভাবে শ্রদ্ধা প্রদর্শন করিত। ছাপঘাটর দরগা অদ্যপি হিন্দু, মুসলমানে পূজা করিয়া থাকে। প্রতি বৎসর রজব মাসে নানা স্থান হইতে ফকীরগণ আগমন করিয়া দরগার পূজা করেন। তদুপলক্ষে ছাপাটীতে একটা মেলারও অধিবেশন হয়। মঞ্জুজার সমাধির নিকট আনন্দময়ীরও সমাধি আছে। ফকীর ও সমাগত জনগণ উভয় সমাধির প্রতিই শ্রদ্ধা প্রদর্শন কয়িয়া থাকেন। মৰ্ত্ত জার পরিণত স্ত্রীর নাম নেজাম বিবি, তাহার গর্ভে মহুঁজার চারিট

  • আমরা এস্থলে তাহার একটা পদ উদ্ধত করিতেছি ঃ“ষ্ঠাম বন্ধু চিতনিবারণ তুমি । কোন শুভ দিনে, দেখা তোম। সনে, পাগরিতে নারি আমি ॥ যখন দেখিয়ে, ও চাদবদনে, ধৈরজ ধরিতে নারি। বভাগীর প্রাণ, করে আন চান, দণ্ডে দশ বার মরি। মোরে কর দয়া, দেহ পদছায়ী, শুনহ পরাণ-কানু। কুল শীল সব, ভাসাইমু জলে, প্রাণ লা রূহে

তিন বিহু । সৈয়দ মর্ভূজ ভণে, কানুর চরণে, নিবেদন শুন হরি সকল ইঞ্জিয়, রহিমু তুঙ্গা পারে, জীবনমরণ শুরি।” (পদকল্পতরু ৪র্থ শাখা, ৩ও পল্পৰ ) 작