পাতা:যশোহর-খুল্‌নার ইতিহাস প্রথম খণ্ড.djvu/৩৯০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

যশোহর-খুলনার ইতিহাস । و لانكا শ্ৰীযুক্ত মকলুব আহম্মদ গা চৌধুরী এম এ ও তাহার কনিষ্ঠ ভ্রাতা লুৎফ আহম্মদ বি, এ মাতঙ্গীরার অন্তর্গত পীরালিবংশ উজ্জ্বল করিয়াছেন। খাজাহানের আমলে পীর আলি মহম্মদ তাহেরের প্ররোচনায় যাহারা মুসলমান হন, তাহারা পীরালি আখ্যা পান বটে, কিন্তু পরবর্তী সময়ে এইভাবে যে সকল প্রসিদ্ধবংশ মুসলমান ধৰ্ম্মে দীক্ষিত হইয়াছেন, তাহারাই পীরালি। মোগল রাজত্বের প্রারম্ভে জনৈক হিন্দু, মুসলমান হইয়া চাদ খা নামধারণ করেন এবং নবাবের অধীন হাবিলদার ও পরে মীরমুন্সী হন। প্রবাদ আছে প্রতাপাদিত্যের পতনের অব্যবহিত পরে যখন চাদ খাঁ পীরালি হন, তখন ১৪০০ ব্রাহ্মণ মুসলমানধৰ্ম্ম গ্রহণ করিতে বাধ্য হইয়াছিলেন। চাদ খাঁ সাতক্ষীরার অন্তর্গত চাদপুরে বাস করেন। ক্রমে ক্রমে ঐ স্থানে শ্রীরামপুর, কুলিয়া, কোমরপুর, পলাশপোল, হেলাতলা, নগরতলা, গণপতিপুর , পাথরঘাট, হাকিমপুর, রসুলপুর প্রভৃতি স্থানে ২৩ শত ঘর পীরালি মুসলমানের বাস হইয়াছে। উক্ত চাদ খা হইতে ৯ম ও ১০ম পুরুষ জীবিত আছেন। পয়ঃগ্রামের সন্নিকটে থাঞ্জেপুর প্রভৃতি স্থানে পাঠান আমল হইতে বহুসংখ্যক উচ্চবংশীয় মুসলমানের বাস হইয়াছিল। উহার পীরালি নহেন। উহাদের বংশধরগণ এতৎপ্রদেশে মুসলমান সমাজে বিশেষ সন্মানিত রহিয়াছেন। ইহাদের জাতিগৌরব বিদ্যা-গৌরবে প্রমাণিত ও সমুজ্জল হইয়াছে। ইহাদের মধ্যে অনেকে ডেপুটম্যাজিষ্ট্রেট, ডেপুটীস্থপারিন্টেণ্ডেণ্ট, পুলিশ ইন্‌স্পেক্টর, সবরেজিষ্টার, উকীল, হেডমাষ্টার প্রভৃতি উচ্চ পদে প্রতিষ্ঠিত আছেন। এত অধিক সংখ্যক উচ্চ-চাকুরিয়া মুসলমান একত্র বোধ হয় যশোহর-খুলনার অন্ত কোন গ্রামে পাওয়া যায় না । রায় চৌধুরীবংশীয় শুকদেবের বংশধরগণ সংশ্ৰব-দোষে সমাজে নিন্দিত ও আত্মীয়স্বজন কর্তৃক পরিত্যক্ত হইয়া একটি পৃথক্ সম্প্রদায়ভুক্ত হইয়া পড়িলেন। ইহাকেই ব্রাহ্মণদিগের পীরালি থাক বলে। শুকদেবের পুত্র গৌরীদাস ও কালচাদ বিখ্যাত ছিলেন। কালাচাদই দক্ষিণডিহিতে কালার্চাদ অর্থাৎ কৃষ্ণমুক্তি প্রতিষ্ঠিত করিয়া, উহার জন্য এক মুন্দর মন্দির নির্মাণ করিয়া দেন। খাজাহানের সঙ্গে যে সকল পাঠানস্থপতি এদেশে আসিয়াছিল, সম্ভবতঃ উহাদেরই সাহায্যে এই মন্দির নির্মিত হয়। মন্দিটি এক্ষণে এক প্রকার ভাঙ্গিয়া গিয়াছে,