পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (অচলিত) দ্বিতীয় খণ্ড.pdf/৬৫৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


అలీ: রবীন্দ্র-রচনাবলী =ম পাউচ শ্ৰীশকে বোলো, তার শরীর যদি সুস্থ থাকে সে যেন বসন্তর দোকানে যায় । সেখান থেকে খাস্ত কচুরি আন চাই। আর কিছু পেস্তা বাদাম কিনে আনতে হবে। দোকানের রাস্তা সে জানে তো ? বাজারে একটা আস্ত কাংলা মাছ যদি পায়, নিয়ে আসে যেন। আর বস্তা থেকে গুন্তি ক’রে ত্রিশটা আলু আন চাই। এবার আলু খুব সস্তা। একান্ত যদি না পাওয়া যায়, কিছু ওল আনিয়ে নিয়ো। রাস্তায় রোধে খেতে হবে, তার ব্যবস্থা করা দরকার । মনে রেখে জলের পাত্র একটা নিয়ো ! অত ব্যস্ত হয়েছ কেন । হয়ে পড়বে-যে । ன்சமங்கற আমি-যে রোজ সকাল হোলে যাই শহরের দিকে চ’লে —কড়া চাই, খুন্তি চাই, অ স্তে আস্তে চলো । ক্লাস্ত তমিজ মিঞার গোরুর গাড়ি চ’ড়ে, সকাল থেকে সারা দুপর ইট সাজিয়ে ইটের উপর খেয়ালমতো দেয়াল তুলি গ’ড়ে। সমস্ত দিন ছাত-পিটুনি গান গেয়ে ছাত পিটোয় শুনি, অনেক নিচে চলছে গাড়ি ঘোড়া । বাসন-ওয়াল থালা বাজায় ; স্বর ক’রে ঐ হাক দিয়ে যায় আতা-ওয়ালা নিয়ে ফলের ঝোড়া ; সাড়ে চারটে বেজে ওঠে, ছেলেরা সব বাসায় ছোটে হোহো ক’রে উড়িয়ে দিয়ে ধুলে,— রোদ র যেই আসে পড়ে, পুবের মুখে কোথা ওড়ে দলে দলে ডাক দিয়ে কাকগুলো ।