পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (ঊনবিংশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/১৩৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শেষরক্ষা ృe) ইন্দু। তা হলে সমতুল্য বলাটা ভুল হয়েছে, তার চেয়ে নাহয় কিছু নীরসই হল। সে তর্ক পরে হবে, তুমি গান গাও। কমল । গান ডাকিল মোরে জাগার সাথি । প্রাণের মাঝে বিভাস বাজে, প্রভাত হল আঁধার রাতি । বাজায় বঁাশি তন্দ্রাভাঙা, ছড়ায় তারি বসন রাঙা, ফুলের বাসে এই বাতাসে কী মায়াখানি দিয়েছে গাথি । গোপনতম অস্তরে কী লেখনরেখা দিয়েছে লেখি ! মন তো তারি নাম জানে না, রূপ আজিও নয় যে চেনা, বেদনা মম বিছায়ে দিয়ে রেখেছি তারি আসন পাতি । ইন্দু। ক্ষাস্তদিদি, ঐ চেয়ে দেখো, বাণ পৌচেছে ! ক্ষাস্তমণি । কোথায় ? ইন্দু। আমাদের এই গলির আকাশ পার হয়ে, ঠেকেছে গিয়ে তোমাদের বাড়ির ঐ দরজাতে । ক্ষান্তমণি। ইন্দু, তুই স্বপ্ন দেখছিস নাকি ? ইন্দু। ঐ দেখো-না, তোমাদের বন্ধ দরজার খড় খড়ে খুলে গেছে। ক্ষাস্তমণি । তা তো দেখছি । ইন্দু। কমলদিদি, বুঝতে পেরেছ ? কমল । আঃ, কী ষে বকিস তার ঠিক নেই। ইন্দু। ঐ খোলা খড় খড়ির ফাক দিয়ে কবিকুঞ্জবনের দীর্ঘনিশ্বাস উচ্ছ্বসিত। ঐ খড় খড়ির পিছনে একটা ধড়ফড়ানি দেখতে পাচ্ছ ? কমল। কিসের ধড়ফড়ানি ? ইন্দু। সেই খবরটাই তো চোখের আড়ালে রয়ে গেল।