পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (চতুর্দশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/১০৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পূরবী দিনেরে মাভৈঃ বলে যেমন সে ডেকে নিয়ে যায় অন্ধকার অজানায় ; স্বন্দরের শেষ অর্চনায় আপনার রশ্মিচ্ছটা সম্পূর্ণ করিয়া দেয় সারা ; যদি সন্ধ্যাতারা অসীমের বাতায়নতলে শাস্তির প্রদীপশিখা দেখায় কেমন করে জলে ; যদি রাত্রি তার খুলে দেয় নীরবের দ্বার, নিয়ে যায় নিঃশব্দ সংকেতে ধীরে ধীরে সকল বাণীর শেষ সাগর-সংগম তীর্থতীরে সেই শতদল হতে যদি গন্ধ পেয়ে থাক তার মানস-সরসে যাহা শেষ অর্ঘ্য, শেষ নমস্কার । আগুেস জাহাজ ৫ নভেম্বর, ১৯২৪ ভাবী কাল ক্ষমা ক’রো, যদি গর্বভরে মনে মনে ছবি দেখি,— মোর কাব্যখানি লয়ে করে দূর ভাবী শতাব্দীর অয়ি সপ্তদশী একেলা পড়িছ তব বাতায়নে বসি । আকাশেতে শশী ছন্দের ভরিয়া রন্ধ ঢালিছে গভীর নীরবতা কথার অতীত স্বরে পূর্ণ করি কথা ; হয়তো উঠিছে বক্ষ নেচে হয়তো ভাবিছ, “যদি থাকিত সে বেঁচে, আমারে বাসিত বুঝি ভালো।” >ግ