পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (চতুর্বিংশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৫৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


দুয়ার-বাহিরে তব আসি যবে সুর করে ভাকি আমি ভোরের ভৈরবে। বসন্তবনের গন্ধ আনি তুলে রজনীগন্ধার ফুলে নিতৃত হাওয়ায় তব ঘরে । কবিতা শুনাই মৃদুস্বরে, ছন্দ তাহে থাকে, তার ফঁাকে ফাকে শিল্প রচে বাক্যের গাথুনি— তাই শুনি নেশা লাগে তোমার হাসিতে। আমার বঁাশিতে যখন আলাপ করি মুলতান মনের রহস্য নিজ রাগিণীর পায় যে সন্ধান । যে-কল্পলোকের কেন্দ্রে তোমারে বসাই ধূলি-আবরণ তার সযত্বে থসাই— আমি নিজে স্থষ্টি করি তারে । ফাকি দিয়ে বিধাতারে কারুশালা হতে র্তার চুরি করে আনি রঙ-রস, আনি তারি জাদুর পরশ । জানি, তার অনেকটা মায়া, অনেকটা ছায়া । আমারে শুধাও যবে ‘এরে কভু বলে বাস্তবিক ? আমি বলি, "কখনে না, আমি রোম্যাটিক।’ যেথা ঐ বাস্তব জগৎ সেখানে আনাগোনার পথ আছে মোর চেনী । সেথাকার দেন। শোধ করি— সে নহে কথায় তাহ জানি— তাহার আহবান আমি মানি । 84