পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (ত্রয়োবিংশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/১১৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


S • be রবীন্দ্র-রচনাবলী শঙ্খমণির খtলে, মাছরাঙারা দুপুরবেলায় তজ্ঞানিঝুম কালে তাকিয়ে থাকে গভীর জলের রহস্তভেদরত বিজ্ঞানীদের মতো । পানাপুকুর, ভাঙনধরা ঘাট, অফলা এক চালতাগাছের চলে ছায়ার নাট । চক্ষু বুজে ছবি দেখি—কাংলা ভেসেছে, বড়ো সাহেবের বিবিগুলি নাইতে এসেছে । ঝাউগুড়িটার পরে কাঠঠোকরা ঠকঠকিয়ে কেবল প্রশ্ন করে । আগে কানে পৌছত না ঝিঝিপোকার ডাক, এখন যখন পোড়ো বাড়ি দাড়িয়ে হতবাক্ ঝিল্লিরবের তানপুরা-তান স্তৰুতা-সংগীতে লেগেই আছে একঘেয়ে স্বর দিতে । আধার হতে না হতে সব শেয়াল ওঠে ভেকে কলমিদিঘির ভাঙা পাড়ির থেকে । পেচার ডাকে বাশের বাগান হঠাৎ ভয়ে জাগে, তন্দ্রা ভেঙে বুকে চমক লাগে । বাদুড়-ঝোলা তেঁতুলগাছে মনে ষে হয় সত্যি, দাড়িওয়ালা অtছে ব্ৰহ্মদত্যি । রাতের বেলায় ডোমপাড়াতে কিসের কাজে তাকৃধুমাধুম বাস্কি বাজে । তখন ভাবি, একলা ব’সে দাওয়ার কোণে মনে-মনে, ঝড়েতে কণত জারুলগাছের ডালে ভালে পির্ভু নাচে হাওয়ার তালে । শহর জুড়ে নামটা ছিল, যেদিন গেল ভাসি হলুম বনগাবালী ।