পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (ত্রয়োবিংশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/১২০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


める● রবীন্দ্র-রচনাবলী সময় আমার গিয়েছে, তাই গায়ের ছাগল চরাই ; রবিশস্তে ভরা ছিল, শূন্ত এখন মরাই । খুদকুড়ে যা বাকি ছিল ইদুরগুলো ঢুকে দিল কখন ফুকে । হাওয়ার ঠেলায় শব্দ করে আগলভাঙা দ্বার, সারাদিনে জনামাত্র নেইকো খরিদার । কালের অলস চরণপাতে ঘাস উঠেছে ঘরে আসার বাকা গলিটাতে । ওরি ধারে বটের তলায় নিয়ে চি ড়ের থালা চড়ুইপাখির জন্যে আমার খোলা আতিথশালা । সন্ধ্যে নামে পাতাঝরা শিমুলগাছের আগায়, আধ-ঘুমে আধ-জাগায় মন চলে যায় চিহ্নবিহীন পস্টগরিটির পথে স্বপ্ন মনোরথে ; কালপুরুষের সিংহদ্বারের ওপার থেকে শুনি কে কয় আমায় ডেকে,—

  • ওরে পুতুলওল৷ তোর যে ঘরে যুগান্তরের দুয়ার অাছে খোলা,

সেথায় আগণম-বায়না-নেওয়া খেলনা যত আছে লুকিয়ে ছিল গ্রহণ-লগা ক্ষণিক কালের পাছে ; আজ চেয়ে দেখ, দেখতে পাবি, মোদের দাবি ছাপ-দে ওয়া তার ভালে । পুরানো সে নতুন আলোয় জাগল নতুন কালে । সময় অাছে কিংবা গেছে দেখার দৃষ্টি সেই সবার চক্ষে নেই— এই কথাটা মনে রেখে ওরে পুতুলওলা, আপন স্থষ্টি-মাঝখানেতে থাকিস আপন-ভোলা ।