পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (দ্বাদশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৫৬৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


@ 88 রবীন্দ্র-রচনাবলী অসংগত। কারণ, কৃষ্ণের মুখে এরূপ উত্তর নিতান্ত রসভঙ্গজনক । “রাধামোহন কহিতেছেন হে প্রভূ এরূপ অর্থও এ স্থলে ঠিক খাটে না ; কারণ, সেরূপ অর্থ হইলে পহু শব্দ পরে বসিত— তাহা হইলে কবি সম্ভবত "রাধামোহন কহে অপরূপ নহে পহু’ এইরূপ শব্দবিদ্যাস ব্যবহার করিতেন । যুগলমূর্তি বর্ণনায় গোবিন্দদাস কহিতেছেন : গোবিন্দদাস পহু ধন্দ, অরুণ নিয়ড়ে পুন চন । এখানে ভণিতার অর্থ : অরুণের নিকট চাদ দেখিয়া গোবিন্দদাসের ধাদা লাগিয়াছে। গোবিনদাসের প্রভুর ধাদা লাগিয়াছে এ কথা বলা যায় না, কারণ তিনিই বর্ণনার বিষয় । এখানে পন্থ সম্বোধন পদ নহে তাহা পড়িলেই বুঝা যায়। শু্যামের সেবাসমাপনাস্তে রাধিকা সখীসহ গৃহে ফিরিতেছেন : সখীগণ মেলি করল জয়কার, খামরু অঙ্গে দেয়ল ফুলহার । নিজ মন্দিরে ধনী করল প্রয়াণ, ঘন বনে রহল সুনাগর কান। সখীগণ সঙ্গে রঙ্গে চলু গোরী, মণিময় ভূষণে অঙ্গ উজোরি। শঙ্খ শব্দ ঘন জয়জয় কার, সুন্দর বদনে কবরী কেশভার । হেরি মদন কত পরাভব পায় । গোবিন্দদাস পহু এহ রস গায় । এখানেও পহু অর্থে প্ৰভু অথবা বঁধু অসংগত । সুন্দর অপরূপ গুমেরু চনা, দেহত ধেনু করত কত ছন্দ । গোধন গরজত বড়ই গভীর ঘন ঘন দোহন করত যদুবীর ।