পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (দ্বিতীয় খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৫৫২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


(* ձՆ রবীন্দ্র-রচনাৰলী আদর্শ কি স্রোতের মধ্যবর্তী শৈলের মতো কালকে অতিক্রম করিয়া বিরাজ করিতেছে না । #. আমরা পরিবর্তনের মধ্যে থাকি বলিয়াই একটা স্থির লক্ষ্যের প্রতি বেশি দৃষ্টি রাখা जांदशक । नश्रिण किडू भ१ बांcन श्रॉब्र किडूई *ाझ्ब्र श्ब ना-नश्zिण चाभब्रा পরিবর্তনের দাস হইয়া পড়ি, পরিবর্তনের খেলনা হইয়া পড়ি। তুমি যেরূপ লিথিয়াছ তাহাতে তুমি পরিবর্তনকেই প্ৰভু বলিয়াছ, কালকেই কর্তা বলিয়া মানিয়াছ—অর্থাৎ ঘোড়াকেই সম্পূর্ণ স্বাধীনতা দিয়াছ এবং আরোহীকেই তাহার অধীন বলিয়া প্রচার করিতেছ। কালের প্রতি ভক্তি এইটেই তুমি সার কথা ধরিয়া লইয়াছ, কিন্তু মচুন্যত্বের প্রতি ধ্রুব আদর্শের প্রতি ভক্তি তাহা অপেক্ষাও শ্রেষ্ঠ । মমুন্যের প্রতি প্রেম, পিতার প্রতি ভক্তি, পুত্রের প্রতি স্নেহ–এ যে কেবল পরিবর্তনশীল ক্ষুদ্র কালবিশেষের ধর্ম, এ কথা কে বলিতে সাহস করে। এ ধর্ম সকল কালের উপরেই মাথা তুলিয়া আছে। “উনবিংশ শতাব্দীর ধূলি উড়াইয়া ইহাকে চোখের আড়াল করিতে পার, তাই বলিয়া ফুয়ের জোরে ইহাকে একেবারে ধূলিসাৎ করিতে পার না । যদি সত্যই এমন দেখিয়া থাক যে এখনকার কালে পিতা-মাতাকে কেহু ভক্তি করে না, অতিথিকে কেহ যত্ব করে না, প্রতিবেশীদিগকে কেহ সাহায্য করে না— তবে এখনকার কালের জন্ত শোক করে, কালের দোহাই দিয়া অধৰ্মকে ধম বলিয়া প্রচার করিয়ো না । অতীত ও ভবিষ্যতের দিকে চাহিয়া বর্তমানকে সংষত করিতে হয় । যদি ইচ্ছা কর তো চোখ বুজিয়া ছুটিবার স্বথ অনুভব করিতে পার। কিন্তু অবিলম্বে ঘাড় ভাঙিবার স্বথটাও টের পাইবে । বর্তমানকাল ছুটিতেছে বলিয়াই স্তৰ অতীত কালের এত মূল্য। অতীত কালের প্রবল বেগ প্রচণ্ড গতি সংহত হইয়া যেন স্থির আকার ধারণ করিয়াছে । কালকে प्रिश्म्न कब्रिट्ड श्हेप्ण चउँौट७त्र टिक झारिउ श्छ । चउँौउ विजूद श्हेप्ण बर्डमान কালকে কেই বা চিনিতে পারে, কেই বা বিশ্বাস করে, তাহাকে সামলায় কাহার সাধ্য । কেননা, চিনিতে পারিলে জানিতে পারিলে তবে বশ করা যায়। যাহাকে জানি না সে আমাদের প্রভু হইয়া দাড়ায়। অতএব পরিবর্তনশীল কালকে ভয় করিয়া চলে, তাহাকে বশ করিতে চেষ্টা করে, তাহাকে নিতান্ত বিশ্বাস করিয়া আত্মসমর্পণ করিয়ো না । বাছ থাকে না, চলিয়া যায়, মুহমুহ পরিবর্তিত হয়, তাহাকে আপনার বলিৰে কী