পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (পঞ্চদশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/২৭৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


রবীন্দ্র-রচনাবলী পুরাতন যে নিঃশব্দ মহাশাস্তি স্তন্ধ হয়ে আছে, নিরাসক্ত নির্বিচল সেই শাস্তি-সাধনার মন্ত্র ওরা প্রতিক্ষণে দিয়েছে আমার কানে-কানে ১৬ জুলাই ১৯৩২ বোবার বাণী আমার ঘরের সম্মুখেই পাকে পাকে জড়িয়ে শিমুলগাছে উঠেছে মালতীলতা । আষাঢ়ের রসম্পর্শ লেগেছে অস্তরে তার । সবুজ তরঙ্গগুলি হয়েছে উচ্ছল পল্লবের চিক্কণ হিল্লোলে । বাদলের ফাকে ফঁাকে মেঘচু্যত রৌদ্র এসে ছোয়ায় সোনার-কাঠি অঙ্গে তার, মজ্জায় কাপন লাগে, শিকড়ে শিকড়ে বাজে আগমনী । যেন কত-কী-যে কথা নীরবে উৎসুক হয়ে থাকে আমি একা বসে বসে ভাবি সকালের কচি আলো দিয়ে রাঙা ভাঙা ভাঙা মেঘের সমুখে ;