পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (সপ্তম খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৪৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


8וו $र्थीं. চরণ কাড়িয়া লয়ে চাহি তার পানে বজ্ৰসেন বলি উঠে, ‘আমার এ প্রাণে তোমার কী কাজ ছিল ! এ জন্মের লাগি তোর পাপমূল্যে কেনা মহাপাপভাগী । এ জীবন করিলি ধিক্‌কৃত । কলঙ্কিনী, ধিক্ এ নিশ্বাস মোর তোর কাছে ঋণী ! ধিক্ এ নিমেষপাত প্রত্যেক নিমেষে।” এত বলি উঠিল সবলে । নিরুদ্দেশে নৌকা ছাড়ি চলি গেলা তীরে, অন্ধকারে বনমাঝে । শুষ্কপত্ররাশি পদভারে শব্দ করি অরণ্যেরে করিল চকিত প্রতিক্ষণে। ঘনগুল্মগন্ধপুঞ্জীকৃত বায়ুশূন্ত বনতলে তরুকাণ্ডগুলি চারি দিকে আঁকা বাক নানা শাখা তুলি অন্ধকারে ধরিয়াছে অসংখ্য আকার বিকৃত বিরূপ। রুদ্ধ হল চারি ধার। নিস্তন্ধনিষেধসম প্রসারিল কর লতাশূন্থলিত বন । শ্রান্তকলেবর পথিক বসিল ভূমে। কে তার পশ্চাতে দাড়াইল উপচ্ছায়াসম ! সাথে সাথে অন্ধকারে পদে পদে তারে অনুসরি আসিয়াছে দীর্ঘ পথ মৌনী অনুচরী রক্তসিক্তপদে। দুই মুষ্টি বদ্ধ করে গৰ্জিল পথিক, ‘তবু ছাড়িবি না মোরে ? রমণী বিদ্যুৎবেগে ছুটিয়া পড়িয়া বন্যার তরঙ্গ-সম দিল আবরিয়া আলিঙ্গনে কেশপাশে স্রস্তবেশবাসে আম্ৰাণে চুম্বনে স্পর্শে সঘন নিশ্বাসে সর্ব অঙ্গ তার ; আর্জগদগদবচন । কণ্ঠরুদ্ধপ্রায় ‘ছাড়িব না’ ছাড়িব না' φή