পাতা:রাজমোহনের স্ত্রী.djvu/৫৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


রাজমোহনের স্ত্রী S & বৃহং প্রসাদের নিকট আসিয়া পড়িল এবং খিড়কির দুয়ার লক্ষ্য করিয়া চলিতে লাগিল । শেষ বিপদ উত্তীর্ণ হইতে তখনও বাকি ছিল । সেই সময়ে বাড়ির সকলে নিদ্রিত। ভিতরে কেমন করিয়া প্রবেশ করিবে—ইহাই হইল সমস্যা । খিড়কির পাশের ঘরে করুণ শয়ন করিত, মাতঙ্গিনী তাহ জানিত । করুণা বাড়ির দাসী । কয়েকবার দ্বারে করাঘাত করিতেই করুণার নিদ্রাভঙ্গ হইল । বিরক্তিকঠোর কণ্ঠে সে বলিয়া উঠিল, এতরাত্রে দুয়ার ঠেলে কে ? মাতঙ্গিনী অধীর কণ্ঠে বলিল, করুণ, তাড়াতাড়ি দরজা খোল । অসময়ে মধুর-নিদ্ৰ-ভঙ্গকারী আগন্তুকের প্রতি করুণার করুণা হইবার কথা নয়, সে কঠোর কণ্ঠে জবাব দিল, তুমি কে গো যে, এতরাত্রে তোমাকে দরজা খুলে দিতে হবে ? নিজের নাম বলিতে অনিচ্ছুক মাতঙ্গিনীর কণ্ঠস্বরে ব্যগ্রত ফুটিয়া উঠিল, শিগগির এস, দেখলেই বুঝতে পারবে । করুণা ধৈর্য্য হারাইল, চীংকার করিয়া হাকিল, কে গা তুমি ? মাতঙ্গিনী জবাব দিল, আমি একজন সামান্য স্ত্রীলোক, চোর নই ৷ দেখই না এসে ! করুণার সহজ বুদ্ধি তখন ফিরিয়া আসিতেছিল। তাহার বোধ হইল, চোরের গলা এমন মিঠা হয় না । আর কথা-কাটাকাটি না করিয়া সে দরজা খুলিয়া দিল। মাতঙ্গিনীকে দেখিয়া করুণার বিস্ময়ের অবধি রহিল না । সে চীংকার করিয়া উঠিল, ঠাকরুণ, তুমি ? মাতঙ্গিনী বলিল, আমি হেমের সঙ্গে দেখা করতে চাই, আমাকে তার কাছে নিয়ে চল । করুণার বুদ্ধি যেন আবার লোপ পাইতেছিল। সে বিস্ময়ের মাত্র