পাতা:রাধারাণী-বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়.djvu/৮০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


86 ब्रञ्जनौ যাইবে ? আমি রাজি হুইলাম। সে আমাকে একদিন সঙ্গে করিয়া গোপালবাবুর বাড়ীতে লইয়া আসিল । কিন্তু তাহার বাপের বাড়ী আমাকে পাঠাইবার সময় আপনি আমার সঙ্গে আসিল না। তাহার ভাই হীরালালকে আমার সঙ্গে দিল। হীরালালও নৌকা করিয়া আমায় হুগলী লইয়া চলিল ।” আমি এইখানে বুঝিতে পারিলাম যে, রজনী হীরালাল সম্বন্ধে কথা গোপন করিতেছে। আমি জিজ্ঞাসা করিলাম, “তুমি তাহার সঙ্গে গেলে ?” রজনী বলিল, “ইচ্ছা ছিল না, কিন্তু যাইতে হইল। কেন যাইতে হইল, তাহ বলিতে পারিব না। পথিমধ্যে হীরালাল আমার উপর অত্যাচার করিতে লাগিল। আমি তাহার বাধ্য নহি দেখিয়া, সে আমাকে বিনাশ করিবার জন্য, গঙ্গার এক চরে নামাইয়া দিয়া নীেক লষ্টয়া চলিয়া গেল।” $. রজনী চুপ করিল—আমি হীরালালকে ছদ্মবেশী রাক্ষস মনে করিয়া, মনে মনে তাহার রূপ ধ্যান করিতে লাগিলাম।—তার পর রজনী বলিতে লাগিল, “সে চলিয়৷ গেলে, আমি ডুবিয়া মরিব বলিয়া জলে ডুবিলাম।” -- আমি বলিলাম, "কেন? তুমি কি হীরালালকে এত ভালবাসিতে " রজনী জকুটা করিল। বলিল, “তিলা না। আমি পৃথিবীতে কাহারও উপর এত বিরক্ত নহি ।” ‘তবে ডুবিয়া মরিতে গেলে কেন ?” “আমার যে দুঃখ, তাহা আপনাকে বলিতে পারি না।” “আচ্ছা । বলিয়া যাও।” “আমি জলে ডুবিয়া তাসিয়া উঠিলাম। একখান গহনার নৌকা যাইতেছিল। সেই নৌকার লোক আমাকে ভাসিতে দেখিয়া উঠাইল। যে গ্রামে আপনার সহিত সাক্ষাৎ, সেইখানে একজন আরোহী নামিল। সে নামিবার সময়ে আমাকে জিজ্ঞাসা করিল, ‘তুমি কোথায় নামিবে ? আমি বলিলাম, আমাকে যেখানে নামাইয়া দিবে, আমি সেইখানে নামিৰ। তখন সে জিজ্ঞাসা করিল, তোমার বাড়ী কোথায় ? আমি বলিলাম, ‘কলিকাতায় । সে বলিল, “আমি কালি আবার কলিকাতায় যাইব । তুমি আজ আমার সঙ্গে আইস। আজি আমার বাড়ী থাকিবে। কালি তোমাকে কলিকাতায় রাখিয়া আসিব । আমি আনন্দিত হইয় তাহার সঙ্গে উঠিলাম। সে আমাকে সঙ্গে লইয়৷ চলিল । তার পর আপনি সব জানেন।”