পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (চতুর্থ সম্ভার).djvu/৫৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শ্রীকান্ত সময়ে সে ছলনা, অনেক সময়ে আত্মবঞ্চনা । তুমি যা বলবে তার চেয়েও অনেক কুহী কথা আমি তোমাদের নিজের মুখেও শুনেচি, চোখেও দেখেচি। কিন্তু তবুও शू* इब्र ब्रां । cकन इब्र नौ ? বোধ হয় আমার স্বভাব । কিন্তু কালই ত বলেচি তোমাকে, তার দরকার নাই । শুনতে আমি একটুও উৎসুক নই। তা ছাড়া, কোথাকার কে—সেসব কাহিনী নাই বা আমাকে বললে । বৈষ্ণবী অনেকক্ষণ চুপ করিয়া কি ভাবিল, তারপর হঠাৎ জিজ্ঞাসা করিল, আচ্ছা গোঁসাই, তুমি পূৰ্ব্বজন্ম পরজন্ম এসব বিশ্বাস কর । भ1 ।। না কেন ? একি সত্যিই নেই তুমি ভাবে ৯ আমার ভাবনার জন্য অন্য জিনিস আছে,এসব ভাববার বোধ হয় সময় পেয়ে উঠিনে । বৈষ্ণবী আবার ক্ষণকাল মৌন থাকিয়া বলিল, একটা ঘটনা তোমাকে বলব, বিশ্বাস করবে ? ঠাকুরের দিকে মুখ করে বলচি, তোমাকে মিথ্যে বলব না। হাসিয়া কহিলাম, করব গো কমললতা, করব । ঠাকুরের দিব্যি না করে বললেও তোমাকে বিশ্বাস করব । বৈষ্ণবী কহিল, তবে বলি । একদিন গহরগোসাইয়ের মুখে গুনলাম হঠাৎ তার পাঠশালার বন্ধু এসেছিলেন বাড়িতে ; ভাবলুম, যে লোক একটাদিন আমাদের এখানে না এসে পারে না সে রইল কোন ছেলেবেলার বন্ধুকে নিয়ে মেতে ছ’-সাত দিন। আবার ভাবলুম, এ কেমনধারা বামুন বন্ধু যে অনায়াসে পড়ে রইল মুসলমানের ঘরে, কারও ভয় করলে না। তার কি কোথাও কেউ নেই নাকি ? জিজ্ঞাসা করতে গহরগোসাইও ঠিক এই কথাই বললে। বললে, সংসারে তার আপনার কেউ নেই বলে তার ভয়ও নেই, ভাবনাও নেই। মনে মনে ভাবলুম, তাই হবে। জিজ্ঞাস করলুম, তোমার বন্ধুর নাম কি গোসাই ? নাম গুনে যেন চমকে গেলুম। জানো ত গোসাই, ও নামটা আমার করতে cनहे ? হাসিয়া বলিলাম, জানি । তোমার মুখেই শুনেচি । বৈষ্ণবী কহিল, জিজ্ঞাস করলুম, বন্ধু দেখতে কেমন ? বয়স কত ? গোসাই কত কি ষে বলে গেল তার কতক বা আমার কানে গেল, কতক বা গেল না, কিন্তু বুকের ভিতরটাৰ পিচিপ করতে লাগল। তুমি ভাববে এমন মাহৰ ত দেখিনি 俄》