পাতা:শিক্ষাবিধায়ক প্রস্তাব.pdf/১৪৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পরীক্ষাবিধান । 为崎粉” রেখা দ্বারা লম্বের সহিত যে রূপ কোণ হইয়ছে, লম্বের অপর পাশ্বে তত বড় একটী ক্ষেপ কর ; পূৰ্ব্বোঙ্ক দ্রব্যকে সেই কোণে দেখা যাইধে । (১৫) উচ্চ কুঙ্গ দর্পণে বিপৰ্য্যপ্ত এক্তিবিশ্ব হয় । এক খানি চসমার গ্লাস লইয়া হাত বুলাইয়ণ দেখ, উহার মধ্য ভাগ উচ্চ বোধ হয় কি না ; যদি উচ্চ ৰোধ হয়, তবে একটা দীপ শিখাৰ সমক্ষে ঐ গ্লtল খালি ধরিয়। তাহার পশ্চাদ্ভাগে এক খানি শুভ্র বর্ণ কাগজ লইয়। ক্রমশঃ ঐ চলমার নিকটানয়ন করিতেই দেখেতে পাইবে ষে কোন একটা স্থানে ঐ কাগজের উপর দীপ শিখণর একটা সুন্দর প্রতিবিম্ব হুইয়া আছে । সেই প্রতিবিম্বে শিখার অগ্রভাগ নীচের দিকে দৃষ্ট হইবে । ( ১১ ) আলোকের শুঙ্গুরতা । একটা গামলা বা অম্য কোন জল পত্রের ভল ভাগে একটী ষ্টীক ৰাখিয়া জিয়। ক্রমশঃ তাহাব নিকট চাইতে পশ্চাজী ছইতে থাক ; কিয়ৎ, দূৰ গমন করিলে ঐ টাকাটাকে জার দেখিতে পাtইৰে লণ। কিন্তু যদি সেই সময়ে অন্য কেছ ঐ গামলtৱ জল চালিয় দেয়, তবে ঐ টাকা পুনর্বার দৃষ্টি গোচর হইবে । ফলতঃ এই রূপ পরীক্ষণ ৰিধtশ শতথ প্রকারে করা যাইতে পারে , এৰই ইছ দ্বারা পদার্থ বিদ্যার গুণনেকালেক বিষয় শিক্ষণ কয়াইতে পারা যায়, সমধিক গণিক্ত ৰিঙ্গ্য", অথবা বহু মূল্য বজ্ঞাদির এয়োজন হয় না। বিশেষষ্ণঃ এই রূপে ছাত্রবর্গের বিবেচন্স এবং দর্শন !