পাতা:শোধবোধ-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/২৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।

প্রথম অঙ্ক

শােধ-বােধ

দ্বিতীয় দৃশ্য

অধীনে চব্বিশ ঘণ্টা বাস ক’র্‌তে হয়, তাঁকে ভয় না ক’র্‌বো তো কা’কে করবো? নিজের স্ত্রীর সঙ্গে বীরত্ব করে’ লাভ কি? আঘাত ক’রলেও কষ্ট, আঘাত পেলেও কষ্ট। তার চেয়ে তর্কের বেলা গৃহিণী যুক্তিকে অকাট্য বলে’ কাজের বেলায় নিজের যুক্তিতে চলাই সৎপরামর্শ— গোয়ার্ত্তামি ক’রতে গেলেই মুস্কিল বাধে। আমি চ’ললেম, যা ভালো বোঝো কর।

শশধরের প্রস্থান।

বিধুর প্রবেশ

 মন্মথ। তোমার ছেলেটিকে যে বিলাতি পোষাক পরাতে আরম্ভ ক’রেছো, সে আমার পছন্দ নয়।

 বিধু। পছন্দ বুঝি একা তোমাবই আছে। আজকাল তো সকলেই ছেলেদের ইংরেজি কাপড় ধরিয়েছে।

 মন্মথ। (হাসিয়া) সকলের মতেই যদি চ’ল্‌বে, তবে সকলকে ছেড়ে একটিমাত্র আমাকেই বিয়ে ক’র্‌লে কেন?

 বিধু। তুমি যদি একমাত্র নিজের মতেই চ’ল্‌বে, তবে একা না থেকে আমাকেই বা তোমাব বিয়ে ক’র্‌বার কি দরকার ছিলো?

 মন্মথ। নিজেব মত চালাবার জন্যও যে অন্য লোকের দরকার হয়।

 বিধু। নিজের বোঝা বহাবার জন্য ধোবার দরকার হয় গাধাকে— কিন্তু আমি তো আর—

 মন্মথ। (জিব কাটিয়া) আরে রাম রাম, তুমি আমার সংসারমরু-ভূমিব আরব ঘোড়া। কিন্তু সে প্রাণিবৃত্তান্তের তর্ক এখন থাক। তোমার ছেলেটিকে সাহেব করে’ তুলো না!

২২]