পাতা:ষোল আনি (জলধর সেন).djvu/১০৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ষোল-আলি রমামুন্দরী রোযভরে বলিলেন “হয়ে থাকে, হয়েছে। তাতে তোমার ভয় কি ? কেমন সিধু ! এই কথাই হয়েছে বুঝি।” সিদ্ধেশ্বর বলিলেন “হা, এই সম্বন্ধেই কথা । তা আমি একেবারে স্পষ্ট শুনিয়ে দিয়ে এসেছি।” “বেশ করেছিস্ ! তার জন্ত ভয় কি ? আচ্ছা চল, কি কি কথা হোলো শুনিগে।” এই বলিয়া রমাসুন্দরী সিদ্ধেশ্বরকে লইয়া গৃহাস্তরে চলিয়া গেলেন ; মানদা অধোমুখে ভাবিতে লাগিলেন। পাশ্বের ঘরে যাইয়া সিদ্ধেশ্বর আয়ুপূৰ্ব্বিক সমস্ত কথা মায়ের কাছে বলিলেন; একটী সামান্ত কথাও বাদ দিলেন না। অবশেষে বলিলেন “দেখ মা, কাকা-বাবুকে এত শক্ত কথা বল! বোধ হয় ভাল হয় নাই। বাইরে বেরিয়ে আমার কিন্তু মনে বড় কষ্ট হতে লাগল। তাই ত, বুড়া মানুষ, পূজনীয় ব্যক্তি ; রাগের সময় র্তাকে অনেক রূঢ় কথা বলে ফেলেছিলাম। একবার মনে করলাম, ফিরে গিয়ে তার কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করি। তার পরেই মনে হোলো, ন, বাড়ী যাই, সব কথা তোমাকে বলি। তাই শুনে তুমি যদি ক্ষমা প্রার্থনা করতে বল, তা হলে যাব। তোমাকে জিজ্ঞাসা না করে যাব না। আর ত কিছু নয় মা, ঐ হরিহরের জন্তই আমার মনে কষ্ট হচ্চে । তার স্বমুথে তার পিতাকে অপমানসূচক কথা বললাম ; সে হয় ত মনে বড় ব্যথ। পেয়েছে ।” রমামুন্দরী বলিলেন “না, তুমি কোন অন্যায় কথা বল নাই । ?a8