পাতা:সংবাদপত্রে সেকালের কথা প্রথম খণ্ড.djvu/১৬৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


>Nこの BBBB BSBB BBBBBBB BBez এক দিবস দেখিলাম যে ঐ বালকের বাঙ্গালি টোলার দিগে যাইতেছে । আমি মনে করিলাম ইহারা কোথা যায় এটা আমাকে জানা উচিত। তাহাতে আমি নিকটে গিয়া ঐ পদাভিকেরদিগকে জিজ্ঞাসা করিলাম যে ইহার কোন সাহেবের সন্তান পদাতিক আমার কথাতে হাস্ত করত কহিলেক “কাহাক ভেকুয়া ব্রাহ্মণ কুচ নাহি সমজতা” “বাবুকী লড়ক৷” ইহা আমার বিশ্বাস হইল না যেহেতুক ঐ বালকেরদিগের কুৰ্ত্তি এবং টুপি ও মোজা ও দাস্তানাপ্রভৃতি ইংরাজী বেশের কোন বৈলক্ষণ্য নাই কেবল কিঞ্চিৎ বর্ণের বিবর্ণতা আছে তাহাও হইয়া

  • て卒 l

শুনিয়াছি এতদ্দেশজাত অথবা যাহার পিতা গোর ও মাতা কালা তাহারদিগের সন্তানেরাও ইংরাজ হয় কিন্তু কিছু মলিন বর্ণ হয় ইহাও বুঝি তাহাই হইবেক পদাতিকের কথায় প্রত্যয় না করিয়া বালকেরদিগের নিকটে গিয়া আমি কহিলাম বাবু তোমার নাম কি একটা বালক কহিল আমার নাম শ্ৰীআধাআমন বাবু। তোমার বাপের নাম কি শ্ৰী-ইহাতে নিশ্চয় জানিলাম ষে বাঙ্গালি বালক বটে । ইংরাজী পোশাক পরিধান করিবার কারণ কি কিছু বুঝিতে পারি না যদি বল উত্তম পোশাক এই নিমিত্তে বালককে দিয়াছেন । আমি মনে করি হিন্দুস্থানি পোশাকাপেক্ষ ইংরাজী পোশাক বাঙ্গালির নিমিত্ত উত্তম কোন মতে নহে। সে যাহা হউক যদি এ পোশাক বাল্যাবধি পরিধান করিতে লাগিল তবে তাহাকে সে পোশাক চিরকাল ভাল ও মুখজনক বোধ হইবেক তবে সে বরাবরি পরিবেক । যখন মস্থ যোয়ান হইয়া ঐ পোশাক পরিয়া বাটার মধ্যে যাইবেক তখন তাহাকে দেখিয়া যদি পরিবারের ভয়যুক্ত না হউক কেননা ঘরের নকল সাহেব জানেন যদি ভিন্ন লোক দেখে তবে অন্ত লোকের সাক্ষাৎ কহিবেক যে অমুকেরদিগের বাটার ভিতর এক জন সাহেবকে যাইতে দেখিলাম ইত্যাদি কলঙ্ক হইতে পারে । অতএব বলি ইঙ্গরাজী পোশাক পরাইয়া বালকেরদিগের অভ্যাস করণের ফল কি দোষ ভিন্ন কিছুই দেখিতে পাই না যদি তাহারদিগের মতে কিছু গুণ থাকে তাহা লিখিয়া আমার থোথা মুখ ভোথা করিয়া দিবেন। ( ২১ মে ১৮২৫ । ৯ জ্যৈষ্ঠ ১২৩২ ) বর যাত্রিকের অবস্থা —শুনা গেল যে সংপ্রতি জেলা বৰ্দ্ধমানের অন্তঃপাতি হরিপুর গ্রামনিবাসি রামমোহন বস্তু নামক এক কায়স্থের পুত্রের বিবাহ আতড়িখড়শী গ্রামের মিত্রেরদের কন্যার সহিত হইয়াছিল তাহাতে যে সকল বিশিষ্ট সন্তান বরযাত্র গিয়াছিলেন ভাহারদিগের সহিত পরিহাসের কারণ কন্যা যাত্রিকের কএক হাড়ির মধ্যে হেলে টোড়া ও টেম্ন এই তিন প্রকার সর্প পরিপূর্ণ করিয়া এক গৃহমধ্যে রাখিয়া সেই গৃহে বরযাত্রিরদিগকে বাসা দিয়া দ্বার রুদ্ধপূর্বক কৌশলক্রমে ঐ সকল ইড়ি ভগ্ন করিল তাহাতে এককালে সর্প বাহির হইয়া হিলিবিলি করিয়া ইতস্ততঃ পলায়নের পথ না পাইয়া ফোস ফাস করত