পাতা:সংবাদপত্রে সেকালের কথা প্রথম খণ্ড.djvu/৪৪৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


মংবাদ পত্রে সেনকালের কথা عموضع تع বিচার কালীন অনর্গল সংস্কৃত ভাষায় কথা কছেন, ব্রাহ্মণ পণ্ডিতেরা তাহার তুল্য সংস্কৃত ভাষা বলিতে পারেন না, গৌড়ীয় ভাষায় বিচারেতেও পরাস্ত হয়েন, দ্রবময়ীর ভাব দেখিতে বোধ হয় লক্ষ্মী কিম্ব সরস্বতী হইবেন, তাহাকে দর্শন করিলে ভক্তি প্রকাশ পায়, এ স্ত্রীলোককে দেখিবার জন্ত কাহার উৎসাহ না হয় BBD BBB BBBBBBB BBBBB BB BBBBB BBBB BB BBB BS BBBB অপলাপ নাই, র্যাহার ইচ্ছা হয় বেড়াবাড়ী গ্রামে যাইয়া দ্রবময়ীকে দেখুন, তাহার সহিত বিচার করুন আমরা দ্রবময়ীর বিদ্যা শিক্ষার বিষয়ে যাহা লিখিলাম যদি ইহার এক বর্ণ মিথ্যা হয় তবে আমারদিগকে মিথ্যাজল্পক বলিবেন, এরূপ সতী বিদ্যাবর্তী স্ত্রীলোক কেহ লীলাবতীর পরে এদেশে জন্ম গ্রহণ করেন नाशे ।" পৃ. ১৪—হটী বিদ্যালঙ্কার এই বিদুষী বঙ্গমহিলা সম্বন্ধে স্ত্রীরামপুরের, পাদরী ওয়ার্ড ১৮১৫ সনে যাহ। লেখেন, নিয়ে তাহ উদ্ধত করিতেছি – * “A few years ago, there lived at Benares, a female philosopher named Hutee-Vidyalunkaru. She was born in Bengal; her father and her husband were kooleenu bramhuns. It is not the practice of these bramhuns, when they marry in their own order, to remove these wives to their Öwn houses, but they remain with their parents. This was the case with Hutee ; which induced her father, being a learned man, to instruct her in the Sungskritu grammar, and the kavyu shastrus. However ridiculous the notion may be, that if a woman pursue learning she will become a widow, the husband of Hutee actually left her a widow. Her father also died ; and she therefore fell into great distress. In these circumstances, like many others who become disgusted with the world, she went to reside at Benares. Here she pursued learning afresh, and, after acquiring some knowledge of the law books and other shastrus, she began to instruct others, and obtained a number of pupils, so that she was universally known by the name of Hutee-Vidyalunkaru, viz. ornamented with learning.”—A View of the History, Literature, and Mythology of the Hindoos : including a minule description of their manners and customs,......, by William Ward, of Serampore, Vol. IV, 3rd ed. (1820), pp. 503-04. সৰ্ব্বশুভকরী পত্রিকা’য় (২য় সংখ্য, আশ্বিন ১৭৭২ ) “স্ত্রীশিক্ষা” নামক প্রবন্ধের লেখক ( মদনমোহন তর্কালঙ্কার ) হটী বিদ্যালঙ্কার সম্বন্ধে এইরূপ লেখেন – “অনেকে স্বচক্ষে দেখিয়াছেন, কিছুকাল হইল হঠাবিদ্যালঙ্কার নামে প্রসিদ্ধ এক রমণী বারাণসীক্ষেত্রে মঠ নিৰ্ম্মাণ করিয়া ভুরি ভুরি ছাত্রদিগকে বিদ্যাদান করিয়াছেন।” রাজনারায়ণ বসুর ‘সেকাল আর একাল’ পুস্তক হইতে হট বিদ্যালঙ্কার সম্বন্ধে নিম্নোদ্ধত সংবাদটুকু পাওয়া যায় ঃ-- “হটা বিদ্যালঙ্কার একজন বিদ্যাবর্তী বাঙ্গালী ব্রাহ্মণ কন্যা । ইহঁার জন্মস্থান বৰ্দ্ধমান জিলার সোএই গ্রাম । ইনি বৈধব্য অবস্থায় বৃন্ধবয়সে কাশীতে টোল করিয়া সভায় ন্যায়শাস্ত্রের বিচার করিতেন ও পুরুষ ভট্টাচাৰ্য্যদিগের স্কায় বিদায় লইতেন ।” (পৃ. ৫২, পাদটীকা )