পাতা:সংবাদপত্রে সেকালের কথা প্রথম খণ্ড.djvu/৫৯৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


সংবাদপত্রে সেকালের কথা 학S-S" "-e》o দ্বিতীয় খণ্ড–১৮৩০-৪০ তৃতীয় খণ্ড—পরিশিষ্ট উনবিংশ শতাব্দীর বাংলার সমাজ রাষ্ট্র ও সাহিত্য কিরূপ ছিল, তাহার সত্যকার পরিচয় প্রাচীন সংবাদপত্র হইতে এই গ্রন্থে সঙ্কলিত হইয়াছে। অভিমত সার যন্থনাথ সরকার –ব্রজেন্দ্রবাবু ইতিপূৰ্ব্বে ইতিহাস-রচনায় যে-সব গুণের পরিচয় দিয়াছেন তাহা এই সংকলন ও সম্পাদন কধ্যেও পরিস্ফুট হইয়াছে এবং এই গ্ৰন্থখানিকে এক দিকে সুপাঠ্য ও শিক্ষাপ্রদ সাহিত্যে এবং অপর দিকে পাণ্ডিত্যের কীৰ্ত্তিস্তম্ভে পরিণত করিয়াছে। যুগে যুগে বঙ্গের ঐতিহাসিক ছাত্রগণ ইহার সাহায্য লইতে বাধ্য হইবে —‘ভারতবর্ষ', পৌষ ১৩৩৯ । অাচাৰ্য্য জীপ্রফুল্লচন্দ্র {{ *-*Mr. Brajendranath Banerji has been doing a public service by unearthing from the newspaper-files of a century or more ago valuable materials.”—Life and Emperiences of a Bengali Chemist, p. 377. শ্ৰীযোগেশচন্দ্র রায় বিদ্যানিধি – যত দিন যাইবে ইহার মূল্য তত বাড়িবে। GÊā sastferntā Brētott THI :—"It is a book for all libraries--family libraries and public libraries as well as personal collections of books, and I can thoroughly recommend it for perusal by all Bengali readers.”— The Amrita Bazar Patrika for Jan. 15, 1933. ডক্টর শ্ৰীমুশীলকুমার দে ঃ—ঐতিহাসিক উপাদান ও প্রমাণপঞ্জী হিসাবে এই গ্রন্থের তিনটি স্ববৃহৎ খণ্ড অধুনা-দুষ্প্রাপ্য সংবাদপত্রের পৃষ্ঠা হইতে ষে-উপকরণ উদ্ধার করিয়া দিয়াছে তাহ ভবিষ্যতে বিস্মৃতপ্রায় গত শতাব্দীর প্রামাণ্য ইতিহাস-রচনার পথ সুগম করিয়া দিবে, তাহাতে সন্দেহ নাই।...সেই যুগের বহু অজ্ঞাত কিন্তু জ্ঞাতব্য তথ্য ও ঘটনা সম্পাদকের অনঙ্গসাধারণ পরিশ্রমে ও নিপুণ বিস্তাস-কৌশলে, ইহার সুখ ছঃথ গৌরব ও আগৌরবের একটি নিৰ্ব্বিকার প্রামাণ্য চিত্র ফুটাইৱা তুলিয়াছে। সুতরাং কেবল প্রমাণপত্নী বা উপাদান সংগ্রহ হিসাবে নহে, সেই যুগের কৃতিত্বের একটি সরস চিত্র হিসাবেও এই গ্রন্থ ঐতিহাসিকের এবং সাধারণ পাঠকেরও আদরণীয় হইবে ।--"প্রবাসী’, শ্রাবণ ১৩৪২ । “শনিবারের চিঠি’ :-সামাজিক-ইতিহাসের দিক দিয়া সংবাদপত্রে সেকালের কথা’র মত মূল্যবান DDDD DDD DD BBBS BD DB DDBBB BBB B BBBB BBBB BBB BBB হওয়া ৰাইবে। ইহা জীবন্ত, আমাদের যাত্রাপথে কোনোমতেই ত্যাগ করিয়া যাওয়া চলিবে না। — জ্যৈষ্ঠ ১৩৪২ ৷