পাতা:সাহিত্য-সাধক-চরিতমালা প্রথম খণ্ড.pdf/৪০৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


33 ঈশ্বরচন্দ্র গুপ্ত দেশপ্রেম সম্বন্ধে-- কতকপ স্নেহ করি, দেশের কুকুর ধরি, বিদেশের ঠাকুর ফেলিয়ু । তথনকার দিনের নাটক সম্বন্ধে-- भा-प्लेक मा भिडै ! বঙ্গদেশ সম্বন্ধে-- এত তঙ্গ ৰঙ্গদেশ তবু বঙ্গভর। তাহার ভাষা সম্বন্ধে বঙ্কিমচন্দ্র বলিয়াছেন ক্টাঙ্গর বাঙ্গালী ভাষা, বাঙ্গtলা সাহিত্যে অতুল। ষে ভাষায় তিনি পদ্য লিথিয়াছেন, এমন থাটি বাঙ্গালায়, এমন বাঙ্গাঙ্গীৰ প্রোণের ভাষায়, আৰ কহ পদ্ধ কি গদ্য কিছুই লেখে নাই । তাহাতে সংস্কৃতজলিত কোন বিকার নাই--ইংরেজিনবিশীর বিকার নাই | পণ্ডিত্যের BBBB BgSBBBB DD DDS DDD DDBB BS BB BS BBB না-সরল, লেঞ্জ পথে চলিয়া গিয়া পাঠকের প্রাণের ভিতর প্রবেশ করে । এমন লাঙ্গাঙ্গীর বাঙ্গালা ঈশ্বর গুপ্ত ভিন্ন অীর কেহই লেখে নাই --অায় লিথিবীর সম্ভাবনা নাই । ঈশ্বরচন্দ্রের বিশেষ পরিচয় তাহার কাব্যের মধ্যে । তাহার কাব্য খণ্ড খণ্ড কবিতায়-বিবিধ ভঙ্গিতে বিবিধ বিষয়ে লেখা, অধিকাংশই সাময়িক । সাময়িক হইলেও গুপ্ত-কবির বহু রচনা মুখে মুখেও আমাদের কাল পৰ্য্যস্ত পৌছিয়াছে অর্থাৎ ঈশ্বরচন্দ্রের এই সকল কবিতা মহাকালের দরবারে পরীক্ষিত হইয়া পাস-মার্ক পাইয়াছে। তাহার তথাকথিত নাটকগুলির মধ্যেও কবিতা-অংশ কম নয়, সঙ্গীতও আছে । সাধারণ ৰখার জন্ত তাহার বিভিন্ন ধরণের কবিতার নমুনা নিয়ে tঃ র্যাহার ব্যাপকভাবে গুপ্ত-কবির কাব্যরস আস্বাদন