পাতা:হিন্দুধর্ম্মের নবজাগরণ - দ্বিতীয় সংস্করণ.pdf/৭২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


হিন্দুধৰ্ম্মের ক্রমাভিব্যক্তি যে গৃহস্থ P অবশ্য গৃহস্থকে অন্যান্য অনেক কৰ্ত্তব্য করিতে হয় বলিয়া সে ততটা এই সাম্যভাবে অবস্থিত হইতে পারে না, কিন্তু তাহাদেরও ইহা অাদর্শ হওয়া উচিত । এই সমত্বভাব লাভ করাই সমুদয় সমাজের, সমুদয় জীবের ও সমুদয় প্রকৃতির আদর্শ। কিন্তু হায়, লোকে মনে করে, বৈষম্যই এই সমজ্ঞান লাভের উপায়। এ যেন অন্যায় কাজ করিয়া ন্যায় পথে পহুছানর মত হইল । ইহাই মনুষ্যপ্রকৃতির ঘোর দুর্বলতা, মনুষ্যজাতির উপর অভিশাপস্বরূপ, সকল দুঃখের মূলস্বরূপ—এই বৈষম্য। ইহাই ভৌতিক, মানসিক ও আধ্যাত্মিক সৰ্ব্ববিধ বন্ধনের মূল । সমং পশ্যন হি সৰ্ববত্র সমবস্থিতমীশ্বরম্। ন হিনস্তাত্মনাত্মানং ততো যাতি পরাং গতিম ৷” ‘ঈশ্বরকে সৰ্ব্বত্র সমভাবে অবস্থিত দেখিয়া তিনি আত্মা দ্বারা আত্মাকে হিংসা করেন না, সুতরাং পরম গতি লাভ করেন " এই একটি শ্লোকের দ্বারা, অল্প কথার মধ্যে মুক্তির সার্বভৌমিক উপায় বলা হইয়াছে । রাজপুত আপনার প্রাচীন ভারতের গৌরবস্বরূপ। আপনাদের অবনতি হইতে আরম্ভ হইলেই জাতীয় অবনতি আরম্ভ হইল । আর ভারত তাহা হইলেই や>