পাতা:১৯০৫ সালে বাংলা.pdf/৭৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


[ ७१ ] ভবানীপুরের দাঙ্গ । সেন ও শ্রমান স্থবোধচন্দ্র ঘোষ এই তিন জন যুবক বিদেশী দ্রব্যের বিক্রয়ে বাধা দেওয়া অপরাধে পুলিশ দ্বারা প্রহৃত ও অভিযুক্ত হন। শেষোক্ত দুইজন অতি তরুণ বয়স্ক, কলেজের ছাত্র । সুরথ কুমারের একমাস কঠোর কারাবাস ও দেড়শত টাকা জরিমানা, এবং ছাত্র দুইজনের এক শত টাকা করিয়া অর্থদণ্ড হইল । প্রথম আদালতের বিচারের বিরুদ্ধে চব্বিশ পরগণার জজের নিকট আপীল হয় । জজ সুরথের কারাদণ্ড অক্ষুন্ন রাখেন তবে জরিমানার টাকার পরিমাণ দেড়শতের পরিবর্তে একশত স্থির করিয়া দেন । হাইকোর্টের চরম মীমাংসার যে কয়দিন [ ১৭ দিন । কারাদণ্ড ভোগ হইয়াছে তাহাই যথেষ্ট স্থির হইল । অর্থদণ্ড রহিত হইল, স্বরথ বাবুর দোষ সাব্যস্তই রহিল, এক বৎসর মুচলেখার আদেশও পূর্ববং বজায় রহিল। ছাত্রদ্বয়ের আপীল না-মঞ্জুর হইয়াছিল। সুরথ বাবুকে সম্মান নিদর্শন রজত পদক প্রদান করা হইয়াছিল, এবং ছাত্রদ্বয়ের নিকট রৌপ্য পরিদোলক লকেট প্রেরিত হইয়ছিল । নোয়াখালি । নোয়াখালিতে একজন চতুর ব্যক্তি স্বদেশবৎসল সাজিয়া যুবক দিগকে বলে “বন্দেমাতরম্ আমাদিগের ইষ্ট মন্ত্র, সুতরাং গুরুদত্ত