পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/১১০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


      প্রার্থনা মন্ত্রঃ-- নমামি সর্ব্বভূতানাং বরদাসি হরিপ্রিয়ে।
 ইন্দ্রের উদ্দেশ্যে তপ কর নৃপবর।
 নিয়ম করিয়া তপ কর সম্বৎসর।।
 বিনা তপে নহে তুষ্ট দেব পুরন্দর।
 এত শুনি তপ আরম্ভিল নৃপবর।।
 উর্দ্ধবাহু একপদ রহে দাঁড়াইয়া।
 সম্বৎসর করে তপ বায়ু আহারিয়া।।
 তপে তুষ্ট হ'য়ে ইন্দ্র আইল তথায়।
 কহিলেন পাণ্ডুরে শুনহ কুরুরায়।।
 আপন বাঞ্ছিত ফল মাগ মহাশয়।
 সর্ব্বগুণযুত হবে তোমার তনয়।।
 বর দিয়া ইন্দ্র হইলেন অন্তর্দ্ধান।
 তপ নিবর্ত্তিয়া পাণ্ডু গেলেন স্বস্থান।।
 কুন্তীরে কহিল পাণ্ডু হরিষ অন্তর।
 পুত্রবর আমারে দিলেন পুরন্দর।।
 স্ববাঞ্ছিত ফল লাভ হইবে তোমার।
 সর্ব্বগুণযুত তুমি পাইবা কুমার।।
 তপস্যায় করিলাম প্রসন্ন বাসবে।
 মুনিমন্ত্রে স্মরণ করহ তাঁরে তবে।।
 স্মরণ করিল কুন্তী স্বামীর বচনে।
 দেবরাজ আইল তখন সেস্থানে।।
 উভয়ের সঙ্গম হইল সুখময়।
 ইন্দ্রের ঔরসে জন্ম হইল তনয়।।
 জন্ম মাত্র শূণ্যবাণী হইল গভীর।
 সুরাসুরে এই পুত্র হবে মহাবীর।।
 পরাক্রমে হবে তুল্য কার্তবীর্য্যার্জ্জুন।
 তিনলোকে বিখ্যাত হবে পুত্রগুণ।।
 পৃথিবীর লক্ষ রাজা জিনি বাহুবলে।
 যুধিষ্ঠিরে অভিষেক করিবে ভূতলে।।
 ভ্রাতৃসহ করিবেক তিন অশ্বমেধ।
 ভৃগুরাম সদৃশ শিখিবে ধনুর্ব্বেদ।।
 শিখি দিব্য অস্ত্র দিব্যমন্ত্র যেইমতে।
 এ পুত্র না জানে হেন নাহিক জগতে।।
 পিতৃলোক উদ্ধারিবে এই পুত্রবর।
 খাণ্ডব দহিয়া এ তুষিবে বৈশ্বানর।।
 এতেক আকাশবাণী হইল আকাশে।
 দেখিতে আইল সব লোক তার পাশে।।
 ইন্দ্র সহ আইল যতেক দেবগণ।
 চন্দ্র সূর্য্য পবন শমন হুতাশন।।
 দেখিতে আইল যত গন্ধর্ব্ব কিন্নর।
 সিদ্ধ ঋষিগণ যত অপ্সরী অপ্সর।।
 একাদশ ঋষি উনপঞ্চাশ পবন।
 অশ্বিনীকুমার আর বিশ্বাবসুগণ।।
 যক্ষরাজ প্রজাপতি আইল ত্বরিত।
 দেবাঙ্গনা আসি করে কত নৃত্যগীত।।
 দেবগণ ঋষিগণ করিয়া কল্যাণ।
 নিরখিয়া সবে গেল আপনার স্থান।।
 তবে কতদিনে পাণ্ডু নিভৃতে বসিয়া।
 কুন্তী প্রতি বলিলেন একান্তে ডাকিয়া।।
 আমার পুত্রের বাঞ্চা পূর্ণ নাহি হয়।
 পুনরাপি কহিতে তোমায় যোগ্য নয়।।
 চতুর্থ পুরুষে নারী হয় যে স্বৈরিণী।
 পঞ্চম পুরুষে নারী বেশ্যা মধ্যে গণি।।
 সে কারণে তোমারে কহিতে না যোয়ায়।
 পুত্রবাঞ্চা পূর্ণ হয় না দেখি উপায়।।
 হেনমতে কুন্তী সহ কথোপকথনে।
 পুত্রচিন্তা নরবর সদা ভাবে মনে।।
 মহাভারতের কথা অমৃত সমান।
 একমনে শুনিলে বাড়য়ে দিব্যজ্ঞান।।
      ----
  নকুল ও সহদেবের জন্ম।
   একদিন পাণ্ডু নৃপে একান্তে দেখিয়া।
 বলিতে লাগিল মাদ্রী নিকটে বসিয়া।।
 কুরুবংশে তিন পুত্র আছে যে সম্প্রতি।
 ইতিমধ্যে দুইজন হৈল পুত্রবতী।।
 শুনিলাম গান্ধারী শতেক নন্দন।
 প্রত্যক্ষে কুন্তীর পুত্র দেখি তিনজন।।
 অভাগিনী আমি ইথে হইনু বঞ্চিত।
 তোমায় কি কব মম অদৃষ্টে লিখিত।।
 দয়া করি কুন্তী যদি অনুগ্রহ করে।
 মন্ত্রবলে জপি পুত্র পাই দেববরে।।
 সহজে সতীন কুন্তী কি বলিতে পারি।
 দেয় বা না দেয় আমি চিত্তে করি ভয়।।