পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/৩৯১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


RలR প্রণাম মন্ত্র—চতুৰ্ব্বদন—সন্মস্থ চতুৰ্ব্বেদ কুটুম্বিনে । [ মহাভারত। করযোড়ে ভূমিপতি বলিল বচন । মম দুঃখ অবধান কর তপোধন ॥ বহু কৰ্ম্ম করিলাম রাজ্যে হয়ে রাজা । সমুচিত বিধানেতে পালিলাম প্রজা ॥ ধন জনে আর মন নাহি তপোধন । সব শূন্য দেখি মুনি, পুত্রের কারণ ॥ এই হেতু রাজ্য ত্যজি যাই বনবাস । তপস্যা করিব গিয়া লইয়া সন্ন্যাস ॥ রাজার বিনয় শুনি গৌতম-নন্দন । ধ্যানেতে বসিয়া মুনি চিন্তে ততক্ষণ ॥ হেনকালে দৈবে সেই আত্মবৃক্ষ হৈতে । শূন্য হতে এক আত্ম পড়িল ভূমিতে ॥ আত্ম ল’য়ে মুনিবর হৃদে লাগাইল । হরিষে রাজার করে অপিয়া কহিল ॥ এ ফল খাইতে দেহ প্রধান ভাৰ্য্যারে । গুণবান পুত্র হবে তাহার উদরে ॥ বাঞ্ছা পূর্ণ হৈল রাজা যাও নিজ ঘর । এত শুনি আনন্দিত হৈল নরবর ॥ মুনি প্ৰণমিয়ে রাজ নিজালয়ে গেল । দুই ভাৰ্য্য। সমান দোহারে বঁাটি দিল ॥ দুই ভাগ করি দোহে করিল ভক্ষণ । এককালে গর্ভবতী হৈল দুইজন ॥ একত্র প্রসব দোহে হৈল এককালে । আনন্দে নিরখে দোহে সেই দুই বালে ॥ এক চৰ্ম্ম নাশ কর্ণ এক পদ কর । অৰ্দ্ধ অৰ্দ্ধ অঙ্গ দেখি বিস্ময় অন্তর ॥ হৃদয়ে হানিয়া কর বিষাদে বলিল । দশ মাস গর্ভব্যথা বৃথা বহা গেল ॥ সেইক্ষণে ফেলাইয়া দিল দাসীগণ । জরা নামে রাক্ষসী আইল ততক্ষণ ॥ সদাই শোণিত মাংস আহার যাহার । ংসারের গর্ভপাত শাসন তাহার ॥ রাজগৃহে গর্ভপাত শুনিয়া ধাইল । অৰ্দ্ধ অৰ্দ্ধ অঙ্গ দেখি বিস্ময় মানিল ॥ আপন নয়নে ইহা কখন না দেখে । দুই হাতে দুইখান লইয়া নিরখে ॥ جينديكسد--- রহস্য দেখিয়া দুই সংযোগ করিল। আচম্বিতে দুই অঙ্গ একত্র হইল ॥ উঙ উঙা করি কান্দে মুখে হাত ভরি । আশচর্য্য হইয়া চিত্তে ভাবে নিশাচরী ॥ না হবে উদর পূর্ণ ইহারে খাইলে । নৃপতি হইবে তুষ্ট এ পুত্ৰ পাইলে ॥ এত চিন্তি কোলে করি লইল নন্দন । মেঘের গর্জন জিনি শিশুর নিঃস্বন ॥ * মনুষ্যের মুক্তি ধরি জরা নিশাচরী। রাজার সম্মুখে গেল পুত্র কোলে করি ॥ নৃপতিরে কহিল সকল বিবরণ । । হের ধর লও রাজা আপন নন্দন ॥ পুত্র পেয়ে উল্লাসিত হইল নৃপতি । তবে জিজ্ঞাসিল রাজা রাক্ষসীর প্রতি ॥ কে তুমি কোথায় বাস কি তোমার নাম । কার কন্যা কণর ভার্ষ্য কোথা তব ধাম ॥ এত স্নেহ আমারে তোমার কি কারণে । আমারে এমত করে নাহি ত্রিভুবনে ॥ রাজার বচন শুনি বলে নিশাচরী। আমারে স্বজিল অগ্রে স্থষ্টি অধিকারী ॥ শিশুর বিনাশে মম হইল স্বজন । সৰ্ব্ব গৃহে থাকি আমি ভক্ষ্যের কারণ ॥ পুত্র পৌত্র সহ মোরে যে গৃহস্থ পূজে । বিবিধ বিধানে স্থখ মম বরে ভুঞ্জে ॥ নিষ্কণ্টকে তাহার বালকগণ বাড়ে । নিবাধি সে হয়, ব্যাধি তাদের ছাড়ে ॥ তব গৃহে পূজা রাজা পাই অনুক্ষণ । তেঁই রক্ষা করিলাম তোমার নন্দন ॥ সমুদ্র শোষয়ে রাজা মম এই পেটে । স্বমেরু সদৃশ মাংস খাইলে না অর্ণটে । এত বলি রাক্ষসী চলিল নিজ স্থান । পুত্র পেয়ে নরপতি মহা হৰ্ষ মন ॥ জাতকৰ্ম্ম বিধিমত করিল রাজন । অনুমান করি নাম দিল দ্বিজগণ ॥ জরায় সন্ধিত হেতু নাম জরাসন্ধ । দিনে দিনে বাড়ে যেন শুক্লপক্ষ চন্দ্র ॥