পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/৭৭৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শান্তিপৰ্ব্ব । ]স্বরুচিরমতিশাস্তং পঞ্চচুড়ং কুমারং, পৃথুতরবরমুখ্যং পদ্মপত্রায়তাক্ষং । ৭৬৩ গৃহ-ধৰ্ম্মচৰ্য্য যেই জন পরিহরি। একেশ্বর ভ্রমে তীর্থ পৰ্য্যটন করি ॥ সৰ্ব্বভুতে সমভাব করে যেই জন । শত্রুতে মিত্রেতে যার সম আচরণ ॥ মুত্তিকাদি দিয়া গৃহু করিয়া নিৰ্ম্মাণ ! - লিঙ্গরূপে যে জন স্থাপয়ে ভগবান ৷ এই সব নর প্রেতযোনি নাহি পায় । ংসারেতে জন্মি যে দুষ্কৰ্ম্ম আচরয় ॥ পিতৃ মাতৃ নিন্দে যেবা নিন্দয়ে ব্রাহ্মণ । অতিথিরে যেই জন না করে তোষণ ॥ পিতৃযজ্ঞে দেবযজ্ঞে বিমুখ যে জন । এই সব লোক মুনি হয় প্রেতগণ ॥ বহু ছল করি যেই পরবৃত্তি হরে । ব্রাহ্মণেরে প্রণাম না করে অহঙ্কারে ॥ ব্রত যজ্ঞে উপহাস করে যেই জন । বলে ছলে পরধন যে করে হরণ ॥ দেবতা উদ্দেশে দ্রব্য আনিয়া যে জন । লোভর্তি হইয়া করে আপনি ভক্ষণ ॥ হেলায় না করে যেই তীর্থ পর্য্যটন । এ সব পাতকী হয় প্রেতত্ব কারণ ॥ গুরুনিন্দ করে যেই বেশু্যাপরায়ণ । প্রেতযোনি জন্ম হয় সেই সব জন ॥ ভীষ্ম বলিলেন শুন ধৰ্ম্মের নন্দন । ধৰ্ম্ম কৰ্ম্ম প্রসঙ্গেতে প্রেত পঞ্চজন ॥ পূর্ববাজ্জিত পাপ যত ভস্ম হ’য়ে গেল । প্রেতমুৰ্ত্তি ত্যজি পরে দিব্যমূৰ্ত্তি হৈল ॥ স্বৰ্গ হৈতে পঞ্চ রথ আইল সেক্ষণ । মুনিরে প্রণমি কৈল রথ আরোহণ ॥ ইন্দ্রের নগরে শীঘ্ৰ করিল গমন । দেখিয় বিস্ময় চিত্ত হৈল তপোধন ॥ পৃথিবীর যত তীর্থ করিল ভ্ৰমণ । ত্রিভুবনে বিখ্যাত কৌণ্ডিন্য তপোধন ॥ মহাভারতের কথা অমৃত লহরী। আমার কি শক্তি ইহা বর্ণিবারে পারি । শিরেতে বন্দিয়া ব্রাহ্মণের পদরজ । কহে কাশীদাস গদাধর দাসাগ্রজ ॥ শিব চতুর্দশর মাহাত্ম্য । যুধিষ্ঠির বলিলেন কর অবধান । ব্রতের মাহাত্ম্য কিছু করহ বাখান ॥ ভীষ্ম বলিলেন তাহা কহিতে কে পারে । সংক্ষেপেতে কিছু রাজা কহিব তোমারে ॥ ইক্ষাকু বংশেতে রাজা চিত্রভামু নাম । সৰ্ব্বশাস্ত্রে বিচক্ষণ রণে অনুপাম ॥ জম্বুদ্বীপে একচ্ছত্র হৈল নরপতি । কুবের সদৃশ তার ঐশ্বৰ্য্য বিভূতি ॥ শীলতায় চন্দ্র যেন তেজে দিনকর । প্রজার পালনে যেন রাম রঘুবর ॥ দ্বিজসেবা বিনা রাজা অন্য নাহি জানে । যেই যাহা মাগে দেয় তোষয়ে ব্রাহ্মণে ॥ শিবব্রতে রত সদা শিবপরায়ণ । শিবচতুর্দশী ব্রত করে আচরণ ॥ ভাৰ্য্যার সহিত রাজা উপবাস করি । দান ধ্যান করি বসিয়াছে অন্তঃপুরী ॥• হেনকালে অষ্টাবক্র সঙ্গে শিষ্যগণ । সত্বরে চলিয়া গেল রাজার সদন ॥ দেখি আস্তে ব্যস্তেতে উঠিয়া নরপতি । দণ্ডবং প্রণাম করিল শীঘ্ৰগতি ॥ বসিবারে আনি দিল দিব্য কুশাসন । একে একে বসিল সকল মুনিগণ ॥ সূপকারগণে আজ্ঞা দিল নরবর। দিব্য উপহার দ্রব্য আসিল বিস্তর ॥ যথাযোগ্য সব কারে করায় ভোজন । ভোজনান্তে দ্বিজগণ কৈল আচমন ॥ তাম্বুল কপূর আদি করিল ভক্ষণ । নৃপে চাহি অষ্টাবক্রমলিল বচন ॥ ভ্ৰাতৃ মিত্র আদি সবে করিল ভোজন । ভাৰ্য্যা সূহ উপবাস কর কি কারণ ॥ দ্বিতীয় প্রহর বেলা মৃদুখ্য ভাস্কর । কোন হেতু উপবাসে আছ নরবর ॥ কিবা চিত্তে দুঃখ তব না জানি কারণ । আত্মাকে দিতেছ দুঃখ কোন প্রয়োজন ॥