পাতা:কাশীদাসী মহাভারত.djvu/৮৫৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


-লাঞ্জামকপর্ব। ] গায়ত্রীর ধ্যান—শ্বেতবাদ সমুদ্দিষ্ট কোঁষেয়বসনা তথা । অৰ্জুন সহিত দুই মাদ্রীর নন্দন । ধৃতরাষ্ট্র আজ্ঞাতে চলেন অনুক্ষণ ॥ ভীম-বাক্যজালে রাজা দহে কলেবর । দ্বিগুণ পূর্বের শোক দহয়ে অন্তর ॥ ছায় পুত্র দুর্য্যোধন বীর চুড়ামণি । তোমার বিরহে দহে এ পাপ পরাণী ॥ এক পুত্ৰ হৈলে লোকে আনন্দ অপার। তোমা হেন শত পুত্র মরিল আমার ॥ আঞ্জাতে করিলে বশ পৃথিবীর রাজা । ভক্তিভাবে তোমার চরণ কৈল পূজা ॥ ইন্দ্রের বৈভব কৈলে পৃথিবী ভিতর। তোমার জনক হেন হইল কাতর। এইরূপে অনুতাপ করে অনুক্ষণ । দুই এক দিন রাজা না করে ভোজন | গান্ধারী প্রবোধ বহু করেন রাজারে । সত্যধৰ্ম্ম বিচারিয়া বিবিধ প্রকারে ॥ অকারণে তাপ কেন কর নরপতি । কৰ্ম্ম অনুরূপ রাজা শুভাশুভ গতি ॥ পিন কৰ্ম্মের ভোগ নাহিক এড়ান। জানি পুনঃ শোচন না করে জ্ঞানবান ॥ আমারে যেরূপ ভাবে হৃদয় তোমার । ইরূপ তোমা প্রতি হৃদয় আমার ॥ গম প্রতি যেইরূপ তোমার হৃদয় । সইরূপ ভাবে ভীম শুন মহাশয় ॥ শশুকাল হৈতে তুমি ভীমেরে হিংসিলা । নক মন্ত্রণা করি নানা দুঃখ দিলা ॥ উরাষ্ট্র বলে ভীম বড় দুরাচার। কশ্বর শত পুত্র মারিল আমার ॥ ঘিরে দেখিলে মম সৰ্ব্ব অঙ্গ দহে । গুণ বাড়য়ে অগ্নি হৃদয়ে না সহে ॥ ঠির গুণ কথা না যায়ু বর্ণন । ধুপুত্র গুণবান ধৰ্ম্মের নন্দন ॥ মের এমন ভাব সে কিছুনা জানে। ইহে জীবন মম ভীমের বচনে ॥ ধর্মপে অন্ধরাজ গান্ধারা সহিত । ሀሙ8ዓ প্ৰণমিয়া অন্ধেরে বিদুর মহামতি । জিজ্ঞাসিল উচাটন কেন নরপতি ॥ কোন দুঃখে দুঃখী তুমি কহত আমারে । ইষ্টদেব তুল্য তোমা সেবে যুধিষ্ঠিরে। ভ্রাতৃগণে নিয়োজিল তোমার সেবনে । অপর আছয়ে যত দাস দাসীগণে । ধৰ্ম্মপথে যুধিষ্ঠির নহে বিচলিত। আর চারি সহোদর তার মনোনীত ॥ রাজ্য অর্থ ধন আদি সকলি তোমার ! পিতৃতুল্য ভাবে তোমা ধৰ্ম্মের কুমার । আপন ইচ্ছায় তব যেই মনে লয় । যত ইচছা দান ভোগ কর মহাশয় ॥ ধৃতরাষ্ট্র বলে তুমি কহিলে প্রমাণ । বেদতুল্য তব বাক্য কভু নহে আন ॥ মম হিত উপদেশ যতেক কহিলা । না শুনিতু তব বাক্য করে অবহেলা ॥ সেই হেতু এই গতি হইল আমার । তবে সুখ দুঃখ কথা কি আর বিচার ॥ ধৰ্ম্মপুত্র যুধিষ্ঠির সর্ব গুণধার। কোন দোষে দোষী নহে ধৰ্ম্মের কুমার ॥ পুত্রের অধিক মম করয়ে সেবন । র্তার গুণে হৈল মম শোক নিবারণ ॥ কোন দোষে দোষী নহে রাজা যুধিষ্ঠির । কিন্তু ভীম দুরাচার দহয়ে শরীর । কোন কৰ্ম্ম হেতু আমি যদি কহি তারে । কৰ্ম্ম না করিয়া আর কহে কটুত্তরে ॥ শত পুত্র মারি দুঃখ নহে নিবারণ। দন্ত কড়মড় করে বাহু আস্ফালন ॥ ভীমের চরিত্র দেখি দহে মম কায় । কি কহিব কহ মোরে ইহার উপায় ॥ বিদুর কহেন শুন স্থির কর মন । ভীমের বচনে রাজা নহ উচাটন ॥ অপমান করে তোমা যদি যুধিষ্ঠির । তব যেই চিত্তে লয় কর নররব ॥ তুমি যেই ভাব কর বৃকোদর প্রতি। তোমারেও দুষ্টভাব করয়ে মারুতি ॥