পাতা:গল্পাঞ্জলি.djvu/১৩৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


রসময়ীর রসিকতা 9 “যাবে কোথা—দারোগা আস্থক তবে যেও ”—বলিয়া দুই তিনটি ফুলাক রসময়ীকে ধরিতে অগ্রসর হইল । রসময়ী এক লম্ফে উঠালের কোণ হইতে অশিবটি খান সংগ্ৰহ ৫রিয়া মাথার উপর সবেগে ঘুরাইয়া বলিল—“খুন চেপেছে—আমার পূন চেপেছে—সবাইকে খুন করে ফাসি যাব ।” ইহ দেখিয়া সমস্ত স্ত্রীলোক “মা গো:” বলিয় ছুটিয়া ঘরে ঢুকিয় &য়ার বন্ধ করিয়া দিল । “পাহারাওয়ালা—এ পাহারাওয়ালা—আসামী পালায়”—বলিয়া চীৎকার করিতে করিতে ঝি পুনশ্চ রাস্তায় বাহির sঠয়া পড়িল । রসময়ী তখন দিদির সক্তিত খিড়কী দরজা দিয়া বাহির হইয়া গাড়ীতে উঠিয়া বলিল—“পারঘাটে চল ।” চতুর্থ পরিচ্ছেদ বলা বাহুল্য, হরিশ্চন্দ্র বাৰু ক্ষেত্রমোহনকে কস্তাদান করিলেন না । হাঙ্গর গৃহিণী বলিলেন—“সে খুলে মেয়েমানুষ, বিয়ে দিলে আমার শয়কে খুন করে ফেলবে । তুমি স্বস্তক্ৰ চেষ্টা দেখ ।” পরদিন কাছারিতে গিয়ু হরিশবাবুর মুখে ক্ষেত্রমোহন সকল কথাই প্রবণ করিলেন । রাগে তাহার সৰ্ব্বশরীর জ্বলিতে লাগিল । কাছারি হইতে বাড়ী ফিরিয়া, হাতমুখ ধুইয়া, অন্তঃপুরে বসিয়া ক্ষেত্রবাবু তামাক খাইতেছিলেন, এমন সময় হঠাৎ ঝড়ের মত রসময়ী আসিয় প্রবেশ করিল। কয়েক মুহূৰ্ত্ত নিৰ্ব্বাক্ হইয় ক্ষেত্রমোহনের ধুন সৃষ্টিপাত করিল—সেই প্রকার দৃষ্টিপাত, যে দৃষ্টিতে পূৰ্ব্বে মুনি লোককে ভস্ম করিয়া ফেলিতেন । e