পাতা:গল্প-গ্রন্থাবলী (প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়) তৃতীয় খণ্ড.djvu/১৫০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


'S 8 ఫి গল্প-গ্রন্থাবলী ধমপান ও টেটসম্যান সংবাদপত্র পাঠ করেন। আজও যথারীতি সেই চেয়ারে গিয়া বসিলেন। বয়, গড়গড়িতে তামাক দিয়া গেল-কিয়ৎক্ষণ ধামপামের পর, পকেট হইতে চশমাখানি বাহির করিয়া চোখে লাগাইয়া স্টেটসম্যানের ভাঁজ খলিয়া পাঠে মনোনিবেশ করিলেন। লীলা খানাকামরায় গহকাষ" করিতেছে—এবং মাঝে বারান্দায় বাহির হইয়া এদিক ওদিক যাইতেছে। হঠাৎ এক সময় হরিনাথলাব চীৎকার করিয়া উঠিলেন—“লীলা—শোন—শোন— শনে যা fr * লীলা সেলভিট কাপড় দিয়া একটা কাচের গলাস পালিস করিতে করিতে বাহির হইয়া বলিল, “কি, বাবা ?” কাগজখানা কন্যার হাতে দিয়া, একটা পথান দেখাইয়া বলিলেন, “পড় এইখানটা ?” বড় বড় হেড লাইন দিয়া তাহার নিলেন মিটার সরোজনাথ রায়ের অসাধারণ সৌভাগ্যের সংবাদটি লিপিবদ্ধ হইয়াছে। লীলার হাত কাঁপিতে লাগিল। অবশেষে তার হাত হইতে কাগজখানি পড়িয়া গেল। নিকটস্থ চেযারখানাতে রসিয়া পড়িয়া বলিল, “হাঁ বাবা, তা হলে কি হবে ?” হরিনাথবাব কন্যার দিকে চাহিলেন, কিন্তু তিনি ক্ষীণদটি, মেয়ের মুখ যে কত ফেকাসে হইয়া গিয়াছে তাহা বঝিতে পারলেন না। লীলা আবার বলিল, “কি হবে বাবা ?” “ঈশ্ববরকে ধন্যবাদ দে মা—তিনি তোকে রাজরাণী করে দিলেন। কি অসীম দযা তলি !" লীলা নীরবে চিন্তা করিতে লাগিল—“দয়া ? দযা কি ? না অভিশাপ ? প্রথমেই ত দেখছি, যে লোকের সাড়ে সাতটার মধ্যে আসবার কথা, ৯টা বেজে গেল, তব তার দেখা নেই!" বন্ধ বলিলেন, “কাল সন্ধ্যেবেলা এ খবর সরোজ তোকে বলেনি?” “না বাবা।” “বোধ হয় গোপন রেখেছে । সে দেখতে চেয়েছিল হয়ত, সে যেমনটি আছে, তেমনি তাকে তুই গ্রহণ করিস কি না। তার এই ভাগ্য পরিবত্তনের পর তুই তাকে গ্রহণ করলে, তার মনে হতে পারতেী—আমাকে নয় আমার টাকাকেই এ গ্রহণ করছে। এখন সে ত জানছে—টীকার লোভে কাল তুই বিবাহে সম্মতি দিসনি " “কি জানি বাবা, কাল হয় ত তিনি নিজেই জানতেন না।” “হ্যাঁ তাও হতে পারে বটে!" লীলা বলিল, ”কিন্তু বাবা, আমি যে সন্মতি দিযে ফেলেছি ! কি হবে এখন ?” কন্যার কন্ঠস্বরে বিস্মিত হইয়া হরিনাথ বলিলেন, “কিসের কি হবে ?” লীলা বলিল, “বাবা, সে আজ একটা রাজা—আমরা সামান্য লোক। তার সঙ্গে আর আমরা কি করে মিশবো রাবা ? মিশতে পারবো কি ?” "কেন ? ওঃ, বুঝেছি। আচ্ছা, ভেবে দেখি কথাটা। তুই ভয় করছিস—সে এখন বড়লোক হয়ে, আমাদের মত অবস্থার লোককে হয়ত তুচ্ছতাচ্ছিল্য করতে পারে। এই ত?” লীলা বলিল, “তার যে হেড বাবচ্চি হবে, তার মাইনে নিশ্চয়ই তোমার পেন্সনের চেয়ে বেশী হবে বাবা —তুমি কি—” "এই অবস্থা পরিবত্তনের পর, আর কি আমি জামাইয়ের বাড়ী গিয়ে বাস করতে পারব, এই কথা জিজ্ঞাসা করছিস ত?--না, সেটা আর আমার পক্ষে সম্ভব হবে না মা। কিন্তু সরোজ ষে রকম ছেলে, অবস্থার পরিবত্তানে কি তার স্বভাবেরও পরিবত্তন হয়ে হাবে ?” "প্রথম নমনা ত এই দেখছি বাবা। তুমি কি বল, তাই শোনবার জন্যে সে কাল