পাতা:গল্প-গ্রন্থাবলী (প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়) তৃতীয় খণ্ড.djvu/১৬৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


উপন্যাস কলেজ $4& मच्चाद्ध ठिन भिर्न मुश्श्वास्त्र क्लाभ झद्देब्रा थाटक। अबिनाश्र ठाक्ष्एक निम्नधिज्र छाट्य কলেজে পৌছাইয়া দেয় এবং সঙ্গে করিয়া বাড়ী লইয়া আসে। লেকচার, এক্সারসাইজ প্রভৃতি কিরাপ হইতেছে তাহা নিত্যই সে খবর লয়। একদিন সৰমা বলিল, “ওগো, কালকে আমাদের ডবল ক্লাস-বেলা একটা থেকে পাঁচটা পৰ্যন্ত কলেজ। ছোট গল্পের প্রোফেসর সরোজ রায়, আমাদের একটি গল্পের চমবক দেবেন—কাসে বসে—সেই গল্পটি চার ঘণ্টায় আমাদের সবাইকে লিখতে হবে । যে গল্প সবচেয়ে ভাল হবে, সেটি সরোজবাব তাঁর 'নবরশ্মি কাগজে ছেপে দেবেন বলেছেন ৷” “আচ্ছা বেশ, কাল আমি তোমায় সময় মত কলেজে পৌঁছে দেবো এখন।” পরদিন অবিনাশ তাহাই করিল। তার নিজ ক্লাস সেদিন তিনটা হইতে চারটা । সতরাং দুই ঘণ্টা কাল তাহাকে গোলদীঘির ধারে বসিয়া “স্বভাবের শোভা সন্দশ্যনে” কাটাইতে হইল। বাক্ষছায়ায় বেঞ্চির উপর বসিয়া, বায়ভেরে গোলদীঘির ঈষত্তরঙ্গিত বক্ষের পানে চাহিয়া, তাহার নিজ বক্ষও আশার হিল্লোলে তরঙ্গায়িত হইয়া উঠিল। সে ভাবিতে লাগিল—এমন একদিন কি আসিবে না, যেদিন উপন্যাস-সমাজ্ঞী সক্ষমা দেবীর নব প্রকাশিত উপন্যাসের প্লাকাডে কলিকাতার দেওয়াল ছাইযা যাইবে! এমন একদিন "ক আসিবে না, যেদিন পথে, ট্রামে, ট্রেণে, সভাসমিতিতে, আমাকে দেখাইয়া লোকে ফসফেসে করিয়া বলাবলি করিবে—ও লোকটা কে জান হে ? ওই হচ্চে সন্যমা দেবীর স্বামী r—আশা কাণে কাণে কহিল—“আসিবে, সেদিন আসিবে।" এক্সারসাইজ স্বরুপ লিখিত সষমার গল্পটিই সব্বোৎকৃষ্ট হইয়াছে বিবেচনায় প্রোফেসার সরোজ রায় সেটি ‘নবরশিম’ পত্রিকায় প্রকাশ করিয়াছেন। যেদিন উহা প্রকাশিত হয়, অবিনাশ স্বয়ং নবরশিম’ কাৰ্য্যালয়ে গিয়া ঐ সংখ্যা পাঁচশখানি কিনিয়া আনিয়া, কুড়িখানা ডাকযোগে আত্মীয় বন্ধবেগেব নিকট পাঠাইয়া দিল। বউয়ের গল্পটির শিরোনামার উভয় পাশেব মোটা লাল পেন্সিলের চিহ্ন করিয়া দিয়াছিল। কোনও বন্ধ বান্ধব সাক্ষাৎ করিতে আসিলে, দই চারি কথার পরই অবিনাশ বলিতে লাগিল—“হ্যাঁ, ভাল কথা, নবরশিম কাগজে বউয়ের একটা গলপ বেরিয়েছে পড়েছ কি ?”—এবং বন্ধকে, সেখানে বসাইয়া, গল্পটি আগাগোড়া না পড়াইয়া ছাড়িত না। একখানি ‘নবরশিম সব্বদাই তাহাব পকেটে থাকিত, এবং প্রায় প্রতিদিনই সে নিজে গল্পটি দই একবার পড়িত। একদিন অবিনাশ সন্ত্রীকে জিজ্ঞাসা করিল, “আজকাল তোমাদের কি বিষয়ে লেকচার হচ্চে বউ ?" সষমা বলিল, “প্রেম-তত্ত্ব। প্রেমের উৎপত্তি, প্রেমের স্বরূপ আর প্রেমের প্রকারভেদ হয়ে গেছে—কথা-সাহিত্যে প্রেমের প্রভাব এখন হচ্চে । কিন্তু সবোজবাব যা বলছেন, তা কিন্তু আমার মনে লাগে না।” “সরোজবাব কি বলছেন ?” * “তিনি বলছেন, দাম্পত্য প্রেমের চেয়ে, নিষিদ্ধ, পরকীয় পরকীয়া প্রেমের রস বেশী —আবেগ বেশী, উমাদনা বেশী, তাই নিষিদ্ধ প্রেমের চিত্র থাকলেই গল্প উপন্যাস সব চেয়ে বেশী হদয়গ্রাহী হয়। এই কথা শ্যনে, সাত আটটি মেয়ে চটেমটে ত কলেজ ছেড়েই দিয়েছে।” “আজকাল তোমাদের কলেজে ছাত্রী সংখ্যা কত ?” “स्नाधि निप्टक्क छैन िछाभाझैँ ।”