পাতা:গল্প-গ্রন্থাবলী (প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়) তৃতীয় খণ্ড.djvu/১৯০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ՏԵ Հ গল্প-গ্রন্থাবলী বাড়ীতে খানও না, রাত ৯টা ১০টার সময় চলে যান, আবার পরদিন সেই বেলা ৯টার আসেন, কেন বল দেখি? আমি বললাম, কি করবেন ভাই, ছাপাখানার চাকরি, সারারাত খবরের কাগজ ছাপেন, সকালবেলা কাগজ বেরোয়, কাজেই রাতে বাড়ী থাকতে পারেন না। সে বললে, “তুমি ভাই সরল মানুষ ; আমার স্বামী যদি আমায় ঐ কথা বলতেন, আমি কিন্তু বিশ্বাস করতাম না। আমি মনে করতাম, আমায় বুঝি ঐ রকম বোকা বাবরে—“ এই পৰ্য্যন্ত বলিয়া নিমালা থামিল। বসন্ত জিজ্ঞাসা করিল, “বোকা বুঝিয়ে— কি ?” 罗 নিৰ্ম্মমালা বলিল, “যাও, আমি বলবো না সে ছাই কথা।” বসন্ত হাসিয়া বলিল, “তোমার সখী এই কথা বললে ত যে, আমি হ’লে মনে করতাম ষে আমার বোকা বুঝিয়ে, হয়ত আমার স্বামী কোনও কু-স্থানে গিয়ে রাত কাটান ।” নিশমলা হাসিতে হাসিতে বলিল, “হ্যাঁ, তাই। তবে, এমন রাঢ় ভাবে বলেনি। বলেছিল, ‘অন্য কোথাও হাওয়া খেতে যান। প্রথমে ত আমি হাওয়া খাওয়া’ মানেই বাঝতে পারিনি, শেষে সে বললে । তুমি কিন্তু ইসারাতেই বুঝতে পেরেছ—উঃ, তোমার খবে বন্ধি কিন্তু " বসন্ত হাসিতে লাগিল। বলিল, “সংহাস আর কতদিন বাপের বাড়ী থাকবে ?” “পজো পয্যন্ত । পুজোর সময় ওর বর আসবে--পজোর পর ওকে নিয়ে আবার পশ্চিমে চলে যাবে।” ইহার কয়েক দিন পরে, এক দিন বসন্ত আসিয়া বলিল, “হ্যাঁ গা, তুমি ভ্রান্তিবিলাস পড়েছ ?” “হ্যাঁ, পড়েছি। তুমিই ত সে বই কিনে বাপের বাড়ীতে আমার দিষে এসেছিল! কেন ?" বসন্ত বলিল, “আচ্ছা, কাল বেলা দুটোর সময় আমি কোথায় ছিলাম ? “কেন ? তুমি এই খাটে শতয়ে ঘামচ্ছিলে।’ “কাল সারাদিন আমি একবারও বেরিযেছিলাম বাড়ী থেকে ?” “না, সেই রাত ৯টার সময় ত আপিসে গেলে । এ কথা কেন জিজ্ঞাসা করছ গা ?” “একটা ভারি মজা হয়েছে। আজ দাপরের পর আমি আপিসে গেলে, একজন আমায় বললে, “কাল বেলা দুটোর সময় মোটরে চড়ে আপনি কোথায় যাচ্ছিলেন ? আমি বললাম, কই, আমি ত কোথাও যাইনি--আমি ত কাল সারাদিন বাড়ীতেই ছিলাম। সে বললে, “বিলক্ষণ ! আপনি একখানা হলদে রঙের মোটরে চড়ে হারিসন রোড দিয়ে যাচ্ছিলেন, একজন বড়ো মত লোক আপনার পাশে বসে ছিল, আর আপনি বলছেন, আমি যাইনি? আমি বললাম, ‘নিশ্চয়ই আমি নয়, তা হলে আমার মত চেহারা অন্য কাউকে আপনি দেখেছেন। সে কিছুতেই আমার কথা বিশ্বাস করলে না। বললে, না, নিশ্চয়ই আপনি । ঠিক আপনার চেহারা, এই রকম পাঞ্জাবী গায়ে, চাদর এই রকম খালে গায়ে জড়ানো, আপনি ভিন্ন অন্য কেউ হতেই পারে না।”—ঠিক ভ্রান্তিবিলাস নয় ?” a & নিন্মলা বলিল, “হ্যাঁ তাই ত! ভারী আশচষ্য ত!” কয়েক দিন পরে নিমালা একদিন সন্ধাবেলা স্বামীকে বলিল, “হ্যাঁ গা, তুমি আপিস থেকে অন্য কোথাও গিয়াছিলে কি ?” বসন্ত বলিল, “না। কেন বল দেখি ?” “সহোসের মুখে শনলাম, আজ তার বাবা দেখেছেন, একখানা হলদে মোটরে চড়ে তুমি হাওড়া স্টেশনের দিকে যাচ্ছ।”