পাতা:গল্প-গ্রন্থাবলী (প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়) তৃতীয় খণ্ড.djvu/২০৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


AGHAI: ssé তাই ভেবেছি, আমার কৃতজ্ঞতার চিহঙ্গারপ—তোমার যদি আপত্তি না থাকে-” . . ডোরা বলিল, “আছে—আমার আপত্তি আছে--আমি তোমার কৃতজ্ঞতা চাইনে?" DDBBD DDS SDS DDD D DDBS DDBBB BBBD DDBBBSAAAA ডোরা বলিল, “উঃ, তুমি ত আজকাল অনেক ভাল ভাল কথা শিখেছ দেখছি ! নিদশন মানে কি ভাই ? সত্যি আমি জানিনে।” g নিরঞ্জন বলিল, “তোমার বাপ মা মারা যাওয়ার পর পাঁচ বছরের বেলা থেকে তুমি মিশনারীদের হাতে—কে তোমায় বাঙ্গালা শেখাবে বল! নিদশন মানে হচ্ছে, কি বলে গিয়ে—ইয়ে—অর্থাৎ—” ডোরা ঈষৎ হাসিয়া বলিল, “চিহ্ন ৷” - “হ্যাঁ হ্যাঁ—চিহ্ন—চিহ্ন।” "তার পর ? বলে যাও—এখনও ধেনু বলনি।” নিরঞ্জন বলিল, “কৃতজ্ঞতা নিতে তোমার আপত্তি থাকে থাকুক—বন্ধত্বের—” ডোরা বলিল, “সেনহের—সেনহের আরও ভাল কথা।" নিরঞ্জন বলিল, “হ্যাঁ হ্যাঁ স্নেহের-স্নেহের চিহ্ন স্বরপ—আমি তোমার জন্যে একযোড়া ব্রেসলেট আনিয়ে রেখেছি। তোমার যদি আপত্তি না থাকে—" ডোরা খিলখিল করিয়া হাসিয়া বলিল, “আপত্তি ? না—না কিচ্ছ না, কিচ্ছ না। কই সে ব্রেসলেটষোড়া দেখি না ভাই ?” নিরঞ্জন উঠিয়া অালমারী খলিতে খালিতে বলিল, “ডোরা, তুমি একটা প্রহেলিকা। তোমায় বোঝা ভার।" ডোরা বলিল, “আমি তোমাব ভাব বোঝা বলেই ত আমায় তাড়াচ্ছ। তব এখনও বউ আসেনি।” নিরঞ্জন বলিল, “বউ কি আসবে " -- "আসবে না ? তোমার কপালে থাকে ত একদিন আসবে বইকি!” নিরঞ্জন একটি ক্যাস-বাক্স আলমারী হইতে বাহির করিয়া আনিতে আনিতে বলিল, “ডোরা, সত্যিই তুমি কি পাঁচ বছর বয়স থেকে মিশনারীদের হাতে ? এ সব খাঁটি বাঙ্গালী বোলচাল শিখলে কোথা তুমি?" , ডোর বলিল, “আমাদের হোম-এ এমনও সব বাঙ্গালী ক্লিশচান নাস আছে, যারা বাঙ্গালী ঘরের হাড়ির খবর সবই জানে। তাদের কাছে আমি শিখেছি।” - নিরঞ্জন ক্যাস-বাক্স খলিয়া একটি ভেলভেটের কেস বাহির করিল এবং সেটি খলিয়া ডোরার সামনে ধরিল। “বঃ—কি সন্দের "—বলিয়া ডোরা তাহা নিরঞ্জনের নিকট হইতে চিলের মত ছোঁ মারিয়া লইল এবং ব্রেসলেট পরিতে উদ্যত হইল। নিবঞ্জন বলিল, “এস ডোরা, আমি নিজে তোমার হাতে পরিয়ে দিই।" ডোরা বলিল, “না না, তোমাষ পরতে হবে না, তুমি লাগিয়ে দাও আর কি ! আমি নিজে পরি।” ব্রেসলেট পরিয়া হাত দুখনি তুলিয়া ঘরাইয়া ফিরাইয়া দেখিতে দেখিতে ডোবার মখে হাসি ফটিয়া উঠিল। ছোট মেয়ে, মনের মত খেলানা পাইলে তাহার মুখে যে খসেীর হাসিটি ফটে—ঠিক সেইরাপ। পরমহত্তে ডোরা গলায় কাপড় দিয়া ভূমিষ্ঠ হইয়া নিরঞ্জনকে প্রণাম করিল। নিরঞ্জন তাহাকে হাতে ধরিয়া তুলিবার অভিপ্রায়ে নত হইবামার, ডোরা হরিণীর মত সুল দি লয় এর ফল দি মালা ब्राश्रामा ! बौंडाग्ना छाकिएङ মোগল । - - রাম আসিলে বলিল, “রামদা দেখ তোমার দাদাবাব আমাকে কেমন গহনা দিয়ে