পাতা:চয়নিকা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/২৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


5ग्ननिक মধুর মধু আলো মধুর মধু বায়, মধুর মধু গানে তটিনী বহে যায় ; ষেদিকে অঁাথি যায় সেদিকে চেয়ে থাকে, যাহারি দেখা পায় তারেই কাছে ডাকে, নয়ন ডুবে যায় শিশির আঁখি-ধারে, হৃদয় ডুবে যায় হরষ-পারাবারে । আয় রে আয় বায়ু যা রে যা প্রাণ নিয়ে, জগং মাঝারেতে দে রে তা প্রসারিয়ে । পেয়েছি এত প্রাণ যতই করি দান কিছুতে যেন আর ফুরাতে নারি তা’রে । অয়ি রে মেঘ, আয়, বারেক নেমে আয়, কোমল কোলে তুলে আমারে নিয়ে য। রে । কনক-পাল তুলে’ বাতাসে জুলে’ জুলে’ ভাসিতে গেছে সাধ আকাশ-পারাবারে । আকাশ, এসে এসো, ডাকিছ বুঝি ভাই, গেছি তো তোরি বুকে আমি তো হেথা নাই । প্রভাত আলো-সাথে ছড়ায় প্রাণ মোর, আমার প্রাণ দিয়ে ভরিব প্রাণ তোর । ওঠে হে ওঠে রবি, আমারে তুলে লণ্ড, অরুণ-তরী তব পুরবে ছেড়ে দাও । আকাশ-পারাবার বুঝি হে পার হবে— vমামারে লাও তবে—অামারে লও তবে । কে তুমি মহাজ্ঞানী, কে তুমি মহারাজ, গরবে হেলা করি হেসো না তুমি আজ । বারেক চেয়ে দেখো আমার মুখপানে, উঠেছে মাথা মোর মেঘের মাঝখানে ।