পাতা:চিদ্বিলাস - বিনয় কুমার সান্যাল.pdf/৪৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটিকে বৈধকরণ করা হয়েছে। পাতাটিতে কোনো প্রকার ভুল পেলে তা ঠিক করুন বা জানান।
৪৩
বেদান্ত দর্শন।

বলা হইতেছে; “নেতি নেতি” বলিয়া তাঁহাকে সমস্ত বিশেষণের অবর্ণনীয় বলা হইতেছে। অতএব আমরা যখন বাহ্য বা অন্তর্জগতের অস্তিত্বজ্ঞানশূন্য হইব তখনই ব্রহ্মের অপরোক্ষানুভূতি হইবে,—তিনি স্বপ্রকাশ।

 এস্থলে ভগবান বাহ্ব ও রাজা বাস্কলির উপাখ্যন বর্ণিত হইতেছে। একদিন রাজা বাস্কল ভগবান বাহ্বকে বারম্বার ব্রহ্ম সম্বন্ধে প্রশ্ন করিলেন; কিন্তু বাহ্ব কিছুমাত্রও উত্তর করিলেন না। কিন্তু পুনঃ পুনঃ রাজা প্রশ্ন করার পর বাহ্ব বলিলেন “আমি উত্তর দিয়াছি, তুমি বুঝিতে পার নাই; শান্তোঽয়মাত্মা”। বস্তুতঃ বাক্য দ্বারা ব্রহ্মতত্ত্ব আলোচনা বাতুলের প্রয়াস মাত্র। এবং পরিচ্ছিন্ন বুদ্ধি দ্বারা ব্রহ্মকে জানিতে চেষ্টা করা মরীচিকাতে জলের প্রত্যাশা করার ন্যায় বিড়ম্বনা মাত্র। তবে সগুণ বিদ্যা একেবারেই নিষ্প্রয়োজন নহে, ইহা দ্বারা সাধকের চিত্তশুদ্ধি হয়।

 সৃষ্টিতত্ত্ব—এক্ষণে শঙ্করাচার্য্য সৃষ্টি সম্বন্ধে কি বলেন তাহা বর্ণিত হইতেছে। শ্রুতিতে কোন