পাতা:জয়তু নেতাজী.djvu/১০৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ჯ8 জয়তু নেতাজী বুঝিয়াছে বলিয়াই এখনও মোহ গ্রস্ত হইয়া আছে । গান্ধীজীর এই ধারণার মূলে আছে সেই উনবিংশ শতাব্দীর মনোভাব । অর্থাৎ আমাদের তুলনায ইংরেজ-চরিত্রের শ্রেষ্ঠতায় বিশ্বাস ; দ্বিতীয় কারণ, তাহার সেক্ট প্রাচীন ভারতীয় সংস্কার,-- স্বাধীনতা বলিয়া পৃথক কোন বস্তু নাই ; একটা বস্তুই আছে, তাহার নাম মুক্তি, তাহাও ব্যক্তিব ব্যক্তিগত সাধনী—তাহা ঠিক রাষ্ট্রিক বা জাতীয় স্বাধীনতা নয় ; মানুষ সেখানে স্বতন্ত্র । সামাজিক হিসাবে, লোকহিতব্ৰত বা দুঃখীব দুঃখমোচনই একমাত্র সন্তাকৰ্ম্ম ; জনসেবার দ্বারা যে চিত্তশুদ্ধি হয় তাহাই সেই মুক্তিলাভের সোপান । ইহাই তাহার হৃদৃগত বিশ্বাস । তিনি এখনও বুদ্ধ ও খ্ৰীষ্টের যুগে বাস করিতেছেন । যুগধৰ্ম্মের বশে মনুষ্য সমাজে যে সকল নুতন ব্যাধির প্রাচুর্ভাব হয়, এবং তাহার জন্ম যে নূতন ঔষধেব প্রয়োজন—তিনি তাহা স্বীকার করেন না, কারণ, তাহার মতে জগতেরও মূল ব্যাধি এক, তাক আরোগ্য করিতে হইলে সেই এক শাশ্বত সনাতন ঔষধই যথার্থ । এই যে মনোভাব হার সম্যক ব্যাখ্যা ও বিশ্লেষণ এখানে সম্ভব নয়, আবশ্যক ও নাই । তথাপি এখানে একটি অপেক্ষাকৃত সহজ ও স্ববোধ্য কারণ নির্দেশ কবা অপ্রাসঙ্গিক হইবে না । প্রত্যেক মানুষের যেমন জাতিগত, বংশগত ও সমাজগত সংস্কার আছে গান্ধীজীরও তাহা আছে ; এবং যেহেতু তিনি অসাধারণ চরিত্র-শক্তিমান পুরুষ, সেই জন্ত ঐ সকল সংস্কার তাহার মধ্যে পুর্ণমাত্রায় ছুরিত হইয়াছে । একে ভারতীয় সংস্কারের অধ্যাক্স