পাতা:তারাচরিত.pdf/৩৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।
২২
তারাচরিত।

এ দিকে পৃথ্বীরাজ তারার প্রতীক্ষা করিতেছিলেন, দুই জনে মিলিত হইয়া টোডায় উপস্থিত হইলেন। যাইয়া দেখিলেন যে, চকে তাজিয়া অর্থাৎ মহম্মদ দৌহিত্রদিগের মৃতদেহের স্বরূপ স্থাপিত হইতেছে। দেখিয়া অশ্বারোহী সৈন্যদিগকে পশ্চাৎ রাখিয়া পৃথ্বীরাজ ও তার এবং পৃথ্বীরাজের চিরবন্ধু সেন গড়াধিপতি এই তিন জনে মছরমের তাজিয়ার সমভিব্যাহারী লোকদিগের সঙ্গী হইলেন। যে সময়ে তাহারা সেই সঙ্গে মিলিলেন তখন তাজিয়া আফগান লীল্লারাজের প্রাসাদ সন্নিহিত হইয়াছিল। অজিয়ার সমভিব্যাহারী হইবার জন্য তিনি পরিচ্ছদ পরিধান করিতেছিলেন। পরদেশী আরোহী তিনটী কে? এই প্রশ্নটা মাত্র তিনি স্বীয় পারিষদকে জিজ্ঞাসা করিলেন এমন সময় পৃথ্বীরাজ ও তারা বাইর ধনুনিঃসৃত দুই প্রবল বাণ তাঁহার বক্ষস্থল ভেদ করিয়া অবশেষে তাহাকে ধরাতলশায়ী করিল। এই আকস্মিক ঘটনা অবলোকন করিয়া আফগান দলের সকলে হা হতোস্মি বলিয়া গোলমাল করিয়া উঠিল, এবং তাহারা ইতিকৰ্ত্তব্য নিৰ্দ্ধারণ করিবার পূৰ্ব্বেই ইহাঁরা তিন জনে নগরের ধারে উপস্থিত হইলেন। হইয়া দেখিলেন যে এক প্রকাও হস্তী নগরের দ্বার রোধ করিয়া দণ্ডায়মান আছে। দেখিবামাত্রই তারা হস্তস্থিত তরবারি দ্বারা করিবরের শুণ্ড চ্ছেদন করিলেন। গজরাজ যন্ত্রণায় অস্থির হইয়া পলায়ন করিল। এই অবসরে তাঁহারা সসৈন্যে নগর আক্রমণ করিলেন। দেখিয়া অধিবাসী সকলে জয় ধ্বনি করিতে লাগিল।

 এইরূপ তাঁহারা নগর দখল করিলেন বটে কিন্তু তাহাতে