পাতা:দুই বোন - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/১০৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।
১১২
দুই বোন

চোখেই পড়ল না। শমি লা কেবল একবার জিজ্ঞাসা করলে, “খাওয়াদাওয়ার কী হবে।” শশাঙ্ক বললে, “হোটেলের সঙ্গে ঠিক করে রেখেছি।” একদিন এইসমস্ত ঠিক করবার ভার যখন ছিল শমিলার উপর, তখন শশাঙ্ক ছিল উদাসীন। অাজ সমস্ত উলটপালট হয়ে গেল। যেমনি শমিলা বললে, “অাচ্ছা, তা যেয়ো” আমনি মুহূৰ্ত অপেক্ষা না করে শশাঙ্ক বেরিয়ে গেল ছুটে। শমিলার ডাক ছেড়ে কঁদতে ইচ্ছা করল। বালিশের মধ্যে মুখ গুজে বারবার করে বলতে লাগল, “আর কেন অাছি বেঁচে।” কাল রবিবারে ছিল ওদের বিবাহের সাম্বৎসরিক। অাজ পৰ্যন্ত এ অনুষ্ঠানে কোনোদিন ছেদ পড়েনি। এবারেও স্বামীকে না ব’লে, বিছানায় শুয়ে শুয়ে সমস্ত আয়োজন করছিল। আর কিছুই নয়, বিয়ের দিন শশাঙ্ক যে লাল বেনারসির জোড় পরেছিল সেইটে ওকে পরাবে, নিজে পরবে বিয়ের চেলি, স্বামীর গলায় মালা পরিয়ে ওকে খাওয়াবে সামনে বসিয়ে, জালাবে ধুপ বাতি, পাশের ঘরে গ্রামোফোনে বাজবে সানাই। অন্যান্য বছর শশাঙ্ক ওকে অাগে থাকতে না জানিয়ে