পাতা:দুই বোন - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৯৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।
১১২
দুই বোন

বললে, “আমার নাম ক’রে তুমি তাকে ডেকে নিয়ে এসো, নিশ্চয় কোনো অপত্তি করবে না।” উমি বাড়িতে ফিরে এসে দেখলে অনেকদিন পরে বিলেত থেকে ওর নামে নীরদের চিঠি এসে অপেক্ষা করছে। ভয়ে খুলতেই পারছিল না। মনে জানে নিজের তরফে অপরাধ জমা হয়ে উঠেছে। নিয়মভঙ্গের কৈফিয়ত স্বৰূপ এর অ্যাগে দিদির রোগের উল্লেখ করেছিল। কিছুদিন থেকে কৈফিয়তটা প্ৰায় এসেছে মিথ্যে হয়ে। শশাঙ্ক বিশেষ জেদ ক’রে শামিলার জন্যে দিনে একজন রাত্রে একজন নাস নিযুক্ত করে দিয়েছে। ডাক্তারের বিধানমতে রোগীর ঘবে সৰ্বদা অাত্মীয়দের অানাগোনা তারা রোধ করে। উমি মনে জানে নীরদ দিদির রোগের কৈফিয়তটাকেও গুরুতর মনে করবে না, বলবে, “ওটা কোনো কাজের কথা নয়।” বস্তুতই কাজের কথা নয়। অামাকে তো দরকার হচ্ছে না। অনুতপ্তচিত্তে স্থির করলে এবারে দোষ স্বীকার করে ক্ষমা চাইব। বলব আর কখনো ক্ৰটি হবে না, কিছুতে নিয়ম ভঙ্গ করব না। চিঠি খোলবার অাগে অনেকদিন পরে অাবার বের করলে সেই ফোটোগ্ৰাফখানা। টেবিলের উপর রেখে