পাতা:পণ্ডিত শিবনাথ শাস্ত্রীর জীবনচরিত.pdf/১৯২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শিবনাথ-জীবনী । و?)( প্ৰতিজ্ঞ পত্রটার বাক্যগুলি এইরূপ ছিল। প্ৰথম-তঁরা একমাত্র ঈশ্বরের উপাসনা করিবেন। দ্বিতীয়-গবর্ণমেণ্টের চাকুরি করিবেন না । তৃতীয়-পুরুষের ২১ বৎসরের ও কন্যার ১৬ বৎসর পূর্ণ হইবার পূর্বে বিবাহ দিবেন না, বা সেরূপ বিবাহে পৌরোহিত্য করিবেন না । চতুৰ্থ-জাতিভেদ রক্ষা করিবেন না। ইত্যাদি এই ঘননিবিষ্ট দলটি গঠিত হইতে না হইতে প্ৰবল ঝড়ের ন্যায়। কুচবিহার-বিবাহ আসিয়া পড়িল । ১৮৭৭ সাল হইতেই শিবনাথের গবর্ণমেণ্টের চাকুরি ছাড়িয়া ব্ৰাহ্মধৰ্ম্মপ্রচারে এবং ব্ৰাহ্মসমাজের সেবায় নিযুক্ত হইবার জন্য প্ৰাণে প্ৰবল বাসনার উদয় হয়। মনের কথা বন্ধু আনন্দমোহন বসুকে জানাইলেন। তিনি বলিলেন, “সে কি হয়, আপনার পরিবার পরিজনের উপায় কি হবে ? তাদের জীবনধারণের ব্যবস্থা না করে। আপনি চাকরি ছাড়তে পারেন না ।” শিবনাথের বয়স তখন ঠিক ত্ৰিশ বৎসর। কেবল পাঁচ বৎসর মাত্র শিক্ষকতা কাৰ্য্যে নিযুক্ত আছেন । শিবনাথ অতি উৎকৃষ্ট শিক্ষক ছিলেন-যে র্তার কাছে পড়িয়াছে সে কখন তঁর অধ্যাপনা ভুলিতে BB D SS SBBD DBBB DDS DDD BD DDSSS DD পাঁচ বৎসরের মধ্যেই তার সংসার ধৰ্ম্ম যেন ফুরাইল। কাজ ছাড়ি ছাড়ি ভাবিতে ছিলেন, এমন সময় কোথা হইতে কুচবিহারবিবাহ আসিয়া তাকে কোন পথে উড়াইয়া লইয়া গেল । এমন এক আবৰ্ত্তে পড়িলেন যে পরিবারের ভাবনা, অর্থ চিন্তা কোথায় ভাসিয়া গেল !