পাতা:পণ্ডিত শিবনাথ শাস্ত্রীর জীবনচরিত.pdf/৩৭৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


WSV শিবনাথ-জীবনী । শিবনাথের ডায়েরি এক অপূৰ্ব্ব জিনিস। আশা আছে তাহা একদিন সকলে দেখিবে । gB BDTBBBDBD DBDBD DBD BB DDDD DDBB D S BBDBD ধৰ্ম্মসাধন করিয়াছিলেন-ৰ্তার কিঞ্চিৎ আভাষ দিয়া এইপ্ৰসঙ্গ শেষ করিব । শিবনাথের জীবনের কাহিনীতে লিপিবদ্ধ হইয়াছে যে দ্বিতীয় বার বিবাহের পর মনে দারুণ নিৰ্বেদ উপস্থিত হয় । মনের যাতনায় অধীর হইয়া তিনি অতি স্বাভাবিক রূপে ভগবানের নিকট প্রার্থনা করিতে থাকেন। অতি স্বাভাবিক ভাবে এই প্রার্থনা তার হৃদয়ে জাগ্রত হয়। প্রার্থনা করিতে করিতে হৃদয়ে দুৰ্জয় বলের আবির্ভাব হইল। কোন গুরু, কোন বন্ধুর উপদেশ বা সহায়তায় তিনি এভােব লাভ করেন নাই। বড় আশ্চর্য্যের কথা, কে তঁর হৃদয়ে এই কাতর প্রার্থনা জাগ্ৰত করিল ; প্রার্থনার সঙ্গে সঙ্গে হৃদয়ে কোথা হইতে বল ও শক্তির আবির্ভাব হইল ; শিবনাথ বলিয়াছেন তখন হইতে ভগবান তাকে আদেশ করিতেন, তিনি ঠিার অন্যথা করিতে পারিতেন না । ঈশ্বরের মুখ চাহিয়াই ভাসিয়াছিলেন, ঈশ্বরের মুখ চাহিয়া ভাসিবার অপূর্ব ফল ফলিল। ধৰ্ম্মকে যে রক্ষা করে, ধৰ্ম্মও তাকে রক্ষা করেন। একথা কি মিথ্যা ? কেশবচন্দ্ৰ শিবনাথকে ব্ৰাহ্মসমাজে আনেন নাই-তিনি সেই নবজীবন প্রাপ্ত, ব্ৰহ্মার্পিত জীবনটাকে ভগবানের সেবার জন্য ডাকিয়া লইলেন। ব্ৰহ্মানন্দ কেশবচন্দ্রের বাণী শিবনাথের জীবনে প্ৰভূত কল্যাণ সাধন করিল। কেশবচন্দ্রের জীবন-বেদে এমন অনেক কথা, আছে, যাহা শিরনাথের প্রাণের কথা । ব্ৰহ্মানন্দ কেশবচন্দ্রের ন্যায় ঘন