পাতা:পণ্ডিত শিবনাথ শাস্ত্রীর জীবনচরিত.pdf/৬০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


8 o শিবনাথ-জীবনী । ভুলিতে পারেন নাই। অন্তর্নিহিত গভীর মৰ্ম্মবেদনা, যখন তখন অকারণে র্তাহার লেখার ভিতর প্রকাশ হইয়া পড়িত । ২২ বৎসরের যুবা লিখিয়াছেন :- “জননীর হাহাকারে ঘর ফেটে যায় রে, পিতার গৰ্ব্বিত শির ধূলিতে লুটায়রে।” ইহার ৮/৯ বৎসব পরে পুষ্পমালায় লিখিতেছেন :- “অন্যে ডাকি কেন কোথা গো জননী । এস মা আমার জনম দুখিনি ! মায়ের বেদন অন্যে তা জানে না, मख्tनब्र भन्ना 'श्रgछ 5 6बitन्। ना, তুমি মা আমার স্নেহ কাল্লালিনি ! সন্তানের প্রাণে এস একবার এ হস্তের সৃষ্টি শোনিতে তোমার তব পদার্পণে, পুত্র-পাগলিনি, জাগিবে হৃদয় নাচিবে লেখনি ।” জনক জননীর তুষ্টর জন্য শিবনাথ ধৰ্ম্মত্যাগ ভিন্ন আর সকল কাৰ্য্যই অমানবদনে করিতে পারিতেন । ঠাকুরমা তাকে ঠাকুরের চরণামৃত ইত্যাদি যাহা খাইতে দিতেন, থাইতেন, পুত্রের মস্তকে জাপের মালা ঠেকাহঁতেন-মাহা কিছু করিতেন শিবনাথ মস্তিক পাতিয়া গ্ৰহণ করিতেন। জননী যাহাতে শান্তি পাইতেন। তাহাই করিতে দিতেন । শিবনাথের জননী ৮১ বৎসর বয়সে ১৩১৫ ( ১৯০৮ )শকে ৩০ এ ভাদ্র দেহত্যাগ করেন। মৃত্যুর সময় পুত্র ও কনিষ্ঠ পুত্রবধূ বিরাজমোহিনী উপস্থিত ছিলেন। মৃত্যুর পূর্বে শিবনাথের মাথায়