পাতা:পলাতকা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/৫০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ছুটে গেল ঘরের থেকে। আপন ঘরে কুয়ার দিয়ে পড়ল মেঝের পরে— ঝরঝরিয়ে ঝরঝরিয়ে বুক ফেটে তার অশ্রু ঝ’রে পড়ে। ভাবলে, “পোড়া মনের কথা এড়ায় নি ওঁর চোখ। আর কেন গো ? এবার মরণ হোক।’ মঞ্জুলিকা বাপের সেবায় লাগল দ্বিগুণ করে অষ্টপ্রহর ধরে । আবশ্যকটা সারা হলে তখন লাগে অনাবশ্যক কাজে ; যে বাসনটা মাজ হল আবার সেটা মাজে । দু-তিন ঘণ্ট। পর একবার যে ঘর ঝেড়েছে ফের ঝাড়ে সেই ঘর । কখন যে স্নান, কখন যে তার আহার, ঠিক ছিল না তাহার । কাজের কামাই ছিল নাকে যতক্ষণ না রাত্রি এগারোটায় শ্রান্ত হয়ে আপনি ঘুমে মেঝের পরে লোটায় । যে দেখল সেই অবাক হয়ে রইল চেয়ে ; বললে, ‘ধন্ত্যি মেয়ে ? বাপ শুনে কয় বুক ফুলিয়ে, গর্ব করি নেকো— কিন্তু তবু আমার মেয়ে সেটা স্মরণ রেখে । 8 82