পাতা:পলাতকা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/৮২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


আসল মাথার পরে উদার নীলাঞ্চল সোনার আভায় করত ঝলোমল । সাত-সমুদ্র তেরো-নদীর সুদূর পারের বাণী আমার কাছে দিতেন আনি । ম্যাপের সঙ্গে হত না তার মিল ; বইয়ের সঙ্গে ঐক্য তাহার ছিল না এক তিল । তার চেহারা নয় তো অমন মস্ত ফাকা ; অ চড়-কাটা আখর-অ’াকা নয় সে তো কোন মাইল-মাপা বিশ্ব— অসীম যে তার দৃশু, আবার অসীম সে অদৃশু । এখন আমার বয়স হল ষাট— গুরুতর কাজের ঝঞ্চাট । পাগল ক’রে দিল পলিটিক্সএ ; কোনটা সত্য কোনটা স্বপ্ন আজকে নাগাদ হয় নি জ্ঞান ঠিক সে– ইতিহাসের নজির টেনে সোজা একটা দেশের ঘাড়ে চাপাই আর-এক দেশের কর্মফলের বোঝা ; সমাজ কোথায় পড়ে থাকে, নিয়ে সমাজতত্ত্ব মাসিক পত্রে প্রবন্ধ উন্মত্ত । যত লিখছি কাব্য ততই নোংরা সমালোচন হতেছে অশ্রাব্য । )br وا