পাতা:প্রবাসী (সপ্তদশ ভাগ, প্রথম খণ্ড).pdf/৩৯১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


প্ৰবাসী-আশ্বিন, ১৩২৪ [ ১৭শ ভাগ, ১ম খণ্ড -- ~ ~ ~ ~ যেদেয় সময়ে, মিষ্টকেঁর মধ্যে মাত্ৰ মধু দেখিতে পাওয়া যায় । - সূক্ষ বিমান করা হয় নাছ । করিবার যোগ্য মনে করি শ্বভাবতঃ পাওয়া যায় । তার পর যখন ইক্ষুরস আবিস্কৃত নাই । ৰালি মাট প্রভৃতি হেতু ভঙ্গ অধিক। কিন্তু হইল, তখন তাঁহা শখাইয়া পিণ্ডাকারে গুডের আকারে জদের ভাগ অধিক নয় অথচ শৰ্করা কোথায় গেল । সহজ । মৎস্যাওঁ, খণ্ড, শৰ্কর করা প্ৰথম জ্ঞানে অৱ ব হুধা নুতনে ছিল বটে, কিন্তু, ১৭ ভাগ ছিল ন সংসহে । ইহস পাক করিয়া ফাণিত অপেক্ষা গাঢ় আয়াম্বাৰ হইতে বোঝা যাইতেছে কি ঘটয়াছে।। আঠাণ্ড কৰিলে মৎসাওঁী (গড়) হয় ; কিন্তু, পূৰ্বে দেখা গিয়াছে, দক্ষ হইয়াছিল বাই ব্যতীত তাল গড় খুঁধা সোজা নয় থও করিতে আরও পুরানা গড় দেখিয়াছি । পুরীতে ‘এদা’র মঠ আরও দক্ষতা সই, শৰ্করা করিতে শৰ্করার প্রয়োজন-বোধ যেমন বিত্তশালী তেমন প্ৰশিক্ষ । এখানে বৎসর বৎসর চাই। এই কারণে মনে হয়, অতি পূৰ্বকালে ফাণিত ও গণ্ড গড় রাখা হয়, পুরানা করা হয়, আর বৈদ্য ও রোগীকে এই দুই প্ৰচলিত ছিল। বোধ হয় প্ৰথমে ফাণিতও তত দেওয়া হয়। পুরীর এক প্ৰসিদ্ধ কবিরাজ মঠ হইতে প্ৰচলিত ছিল না । যদি কেতু, একটা সুখাদ্য রস আবিষ্কার পুরাতন গড় কিছু পঠাই দিয়াছিলেন গতি বৎসর ৱে, আয় দেখে যে সে রস অবিকৃত রাখিতে পারা যায় না, ‘আধা মাসে । সে গড় কৃষ্ণপিঙ্গল, কু-কেলাসী, তখন সে তাহ খাইয়া রাখিতে চেষ্টা করিবে। এই বালুকাকদৰ্মৰং কোমল, তিক্ত ও ঈষৎ আয় । গড়ের উপরে যে শীকৃত ইক্ষুরস, তাহাই । … ই আন-নাৱ ফুট উঠতেছিল, একস্থানে তুলা:াতাও ধরিয়াছিল। পক্ষে সুবিধাজনক । অতএব অনুমান হয়, প্ৰথমে মধু, তার বৰ্ষাকাল, তাহার উপর গড় মামল । সানজ র ও ছাতা পন্ন গড় ; কাজেই মধু অভাবে গড় না হইয়া চীন মিছী ধরিবার যোগ্য কাল ও পাত্ৰ বটে। সে গড়ে অ ৰ্থ এই, উপাদানের ভাগেও ইক্ষুশর্করা ৫৮ ভেলী অনেকটা মধু’ল সদৃশ । প্ৰথম পরিচ্ছেদে উনশৰ্করা ১৮ কোষৰ ভাগ প্ৰদৰ্শিত হইয়াছে সে-সব মিলাইলেও সত্য অন্য জৈব মিথ্যা বৃষ্টিতে পায় যাইবে। মধুর মিষ্টতার কারণ উন শৰ্করা। সাধারণ তি’া বা তেীতে উনশৰ্করা প্ৰায়ই বঙ্গের বিরাজ মহাশয়েরা যাহাকে পুরাতন গড় কবিরাজী পুরানা গুড় এইরকম । কিন্তু সুশ্ৰত পুৱানা বলেন, এখন তাহার ভাগ দেখা যাউক দুঃখে বি গড যে “পথ্যতম । সে গড় কি বাঙ্গালা ওড়িষ্যার গড়, বঙ্গের গড় পাই নাই, এবং একই গড় নুতন ও পুরাতনে না পশ্চিমের গড় ? বাঙ্গালার গড়ে বল থাকে, মল থাকে। দেখিতে পাই নাই। কটকের এক দোকানে আড়াই তাহাকে পুরাতন করিয়া, ছত্রাক ও অণুজীবের জন্মভূমি বছরের গড় দেখিয়াছিলাম। ইহা বালুক-কৰ্দমবং কোমল, করিয়া, অঙ্ক ও তিক্ত করি most whole কৃষ্ণবৰ্ণ, ও অন্ম। ইহাতে কুটা, অথের খোআ, ও বালি sore) করিতে হইবে কি ? ঘাট ছিল। বোধ হয় ওড়িষ্যার গড় পতিয়া থাকিয়া আরও এই বিস্ময়োক্তি শনিয়া বঙ্গের এক কবিরাজ বলিলে, কুৎসিত হইয়াছিল।. ইহার শতকে পাইয়াছি কে জানে অণুজীবের ক্ৰিয়াহেতু গড় পণ্যতম নহে? কে জানে পুরাতন গড়ে ঈবং মঙ্গ, ও ঈষৎ বেিস্ত ও অন্ন স্থা উনশৰ্করা, বলিয়া পাত হয় না ?” তিনি আরও বলিলেন, আবেদে একটা শুতিপরম্পরা আছে আমরা সেই শতি মানিয়া চলিতেছি । ত. ছাড়া বঙ্গদেশীয় কেহ কো পশ্চিমে গিা আয়ুৰ্বেদ শিখিয়া আসিয়াছেন তাহারা ৫৫ ৩৮ , ৬ষ্ঠ সংখ্যা] প্ৰাচীন কালের গড় ও আখ বাঙ্গালা গড় ত্যাগ করেন নাই ।” , হইয়াছিল। দেড়মাসের মধ্যেও এই পরিবর্তন মানবোপা, অামি কবি-পণ্ডিত হইলে হয়ত প্ৰত্যু করিতাম। তথাপি, শব্দ, লক্ষণ, হইয়াছিল । অণুজীব যে একটা ফ্ৰায়ণ হইয়াছিল, তাহা বিভাগ, পৰ্যায় বিচার করিলে মনে হয় বঙ্গদেশীয় কবিরাজ সঙ্কন্দে বলিতে পাৱা যায়। স্কিাতে অৰ্থাৎ গড়ে এই অন্ধ-পরপল্লাল্লাৱে মংগুীকে গড় মনে কৰিছা আসিতে . লুপ পরিবর্তন অধিক ইবার কথা । সে-সব পরিবর্তন ফি, হেন। বঙ্গদেশে - প্রাপা হওয়াতে শুতি-পরম্পরায় তাহা বলা হুঙ্কর হইবে । প্তিাতে ইক্ষুশর্করাও গ্ৰহ উৎপত্তি হইয়া থাকিবে । কুচিকর না হইলেও “পথ্যতম" থাকে ; কিন্তু , কে জানে তাহা চাঁদির তুল্য, কি উনপঞ্চৱাদ হইতে পারে কি না, তাহাও বিচাৰ্য । পুরাতন গড় রোগীর পূর্ব অবস্থা।" একথা সৰ্বদা স্মরণ কর্তব্য যে রাসায়নিক পথ্য, অষ্ঠে নহে, এমন আদেশ ত নাই । পরীক্ষা, স্থূল উপাদানের পরীক্ষা, স্থির দ্রব্যের পরীক্ষা । সে যাহা হউক, পুরাতন ভিড়া পাইলে তাঙ্কার ভাগ - অ-দ্বিরের বর্ণন ও বিমান বিষ্ঠানের অসাধ্য। শ্ৰীৰ-মেয়ে বিমান দ্বারা হয়ত কিঞ্চিৎ আভাস পাওয়া যাইত। বিচিত্ৰ ব্যাপার, যাহানিয়র নূতন, চির-অম্বিয়, তাহার বিমান মনে রাখিতে হইবে, “শদ্ধ গড° পুরাতন করিয়া দেখিতে সান-বিজ্ঞানের অশক্য । .. রাসায়নিক পরীক্ষা অপেক্ষা ইত এখানে গয়া জেলা হইতে ভেলী অাসে জীবদেহধারা পরীক্ষা বগণে স্বল্প । বস্তুতঃ স্থলের বিধান দোকান হইতে এক বৎসরের পুরােনা ভেলী লইয়া দ্বারা সুয়ে, ইয়া হইতে পাৱে না।" দেখিয়াছি ইক্ষু-শৰ্করা * এখানে কয়েকটা উদ্ধত কহিতেছি । ( Date sugar Ind a উন-শকরা try in Bengal. By 1. E. And অল্প জৈব ১৯১১। জুন ১৯১২ এপ্রিল ইক্ষুশৰ্করা উনশকরা ইক্ষুশর্করা উনশ বালি ২৪ ৭৫ একবার সাহেব আর-একটু পৰিশ্ৰম কহিবা লোহাগ নিৰ্ণ কহিয়েবোৰ পাইয়াছি। নুতন বেলােয় তেলীটা যে ভাল ছিল, তাহা যা দেখবাইত যে বাহাতে জল অধিক ছিল, তাতে পান ধিক হইয়াছিল। জীবি, বিশেষতঃ থ চীন গত পৰি অন্য জৈব’ ও ‘সু’ হইতে বোঝা যাইতেছে। তথাপি বাঙ্গালা গড়ের তিনগুণ উনশৰ্করা ছিল। উপরে পুরীর হইতেই বোঝা যায়, কিন্তু’টিয়াছে। কি মিলে ঘটে না,ইহাই জিলা । মঠের গুড়েও উনশৰ্করার ভাগ অধিক দেখা গিয়াছে * ইহা তুরি তুরি উদাহরণ দেওয়া যাইতে পারে।- সুৱৰ পুৱানা হইলে তাহার পরিবর্তন হয় ; কি পরিবর্তন পুরাতন ধা, নুতন ও পুরাতন ত, নুতন ও. পুৱামা , এৰ হয়, তাহা জানি না । কিন্তু, দেখিতেছি, উনশৰ্কৰা বৃদ্ধি হয় তপ্ত ও শীতল আয়, প্ৰকৃতিৱগণান্ত বাসায়নিক পৰীক্ষার গয়া। এইরুপ পরিবর্তন কেবল গড়ে নহে, শৰ্করাতেও অগমা ; পরে রায়নবিজ্ঞান বৃদ্ধি হইলে যে গম্য হইবে, তাহা হে। সকলে জানেন, খেজুৱা গুড় কত শীষ বিকৃত হয় কারণ শ পাঁচটা স্বত্ৰ ( formula) চনা করিতে পাৰিলেই যোগ মাথাত হয় না। জীবদেহ ছাফিয়া দিলেও পাৰিয্যের বেলা দানেট সাহেৰ ো গড়ে দোৰাৱা, একবারা, ও সেই কথা জগতে বেিৱ বলিয়া বস্ত, নাই; অথচ হি কৰা না লুৱাতে উন-শর্করা পৃদ্ধি দেখিয়াছেন। তিনি চানিগুলির করিলে বিজ্ঞানের ধরিষার ইবার কিছুই থাকে না । এই দুই ভাগ বিমান করিয়া শিশিতে কাচের কাক দিয়া বা করিয়া বিরোধের সমন্বয় কল্পনাও অতীত । আরও দেখুন, বিজ্ঞান ৰে । থিয়াছিলেন। প্ৰায় ১াক বৎসরের মধ্যে উনশৰ্করার পরীক্ষা কৰু, তাহা ইলিয়মাহ হইতে হইবে, পরিমে হইতে হইছে। ভাগ বৃদ্ধি হইয়াছিল ৰঃ ইক্ষুশরা ভাগ ব্লাস অথচ সুস্থ হেতু, ডাহা ইলিয়ে মাঙ্গ, সুতরাং অ-পজিনো বইতে