পাতা:প্রাচীন বাঙ্গলা সাহিত্যে মুসলমানের অবদান.djvu/২৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


প্রাচীন বাঙ্গলা সাহিত্যে মুসলমানের অবদান ף כי ASAAAAS SAAAAAA AAAA AAAA AAAA SAAAA S -------- SAASAASAASAASAASAAAS -------- - পূৰ্ব্বেই বলিয়াছি,—আমাদের পরিচয় বাঙ্গালীর শৌর্য্য, বীৰ্য্য এবং অগাধ আত্মত্যাগের কাহিনী, যাহা ইতিহাস-পূৰ্ব্বযুগে ভজ্জিল উচ্চকণ্ঠে ঘোষণা করিয়াছিলেন এবং অনেক পরে কাশ্মীরের কবি কহলন অত্যুক্তি দ্বারা স্থখ্যাতি করিয়াছিলেন। আমাদের পরিচয়— বাঙ্গালার বাউল ও সহজিয়া মত, যাহা শ্রেণী-নির্বিশেষে ভূমাকে লক্ষ্য করিয়ছিল এবং যাহাতে এদেশের বর্ণাশ্রমের ভিত ধবসিয়া পড়িয়াছিল। আমাদের পরিচয়—বাঙ্গালার প্ৰেমধৰ্ম্ম, যাহা এখন পৰ্য্যন্ত বাঙ্গালা দেশকে মাতাইয়া রাখিয়াছে। আমাদের পরিচয়—বাঙ্গালার পল্লীগীতি, যাহা আধুনিক হিন্দু-মুসলমানের পূৰ্ব্ব-পুরুষদের স্মৃষ্টি। সেই গীতি কিরূপ উচ্চ ভাবুকতা ও কবিত্বব্যাঞ্জক, তাহা পরে দেখাইব । আমাদের পূর্বপুরুষগণ যে-সম্প্রদায়ভূক্তই থাকুন না কেন, ইহারা এক বৃহৎ পরিবারভৃক্ত, সেই পরিবারের নাম—বাঙ্গালী । ইহার এক এবং ভিন্ন ভিন্ন নহেন। বাহ-দৃষ্টিতে হিন্দু, মুসলমান, দেশীয় খৃষ্টান, জৈন, বৌদ্ধ, শাক্ত, বৈষ্ণব প্রভৃতি নামে এদেশবাসী শতধা-খণ্ডিত ; কিন্তু অস্তদৃষ্টিসহকারে লক্ষ্য করিলে দেখা যাইবে, ইহাদের একই আদশ, একই অনুপ্রাণন এবং একই বৈশিষ্ট্য । এখানে সাম্প্রদায়িকতা, ধৰ্ম্মের বিভিন্নত, শ্রেণীভেদ। এসকল কোন প্রশ্নই তোলা সমীচীন নহে—আমাদের যে জাতিত্ব অচ্ছেদ্য এবং য়াহ আদিযুগ হইতে আমাদের শোণিত প্রবাহে বিদ্যমান, তাহাই আমাদের ঘনিষ্ঠ আত্মীয়তার পরম সাক্ষী । সাম্প্রদায়িক যতপ্রকার বৈষম্যই থাকুক না কেন, বাঙ্গালার জনসাধারণের একনাম জানি-ইহার বাঙ্গালী এবং এই নামের প্রতি গভীর শ্রদ্ধায় আমি আমার জাতিকে পুন: পুনঃ আন্তরিক প্রীতি জ্ঞাপন করিতেছি। সাম্প্রদায়িক ঝগড়-বিবাদ ও রক্তারক্তি চিরকাল হইয়া আসিয়াছে, তাহার কতকগুলি প্রমাণ আমি দিয়াছি, তথাপি বাঙ্গালীর সহিত বাঙ্গালীর জ্ঞাতিত্ব লোপ পায় নাই। Հա