পাতা:প্রাচীন বাঙ্গলা সাহিত্যে মুসলমানের অবদান.djvu/৩০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


প্রাচীন বাঙ্গলা সাহিত্যে মুসলমানের অবদান 》 SAASA SAASAASAASAASAA AAAA AAAA AAAA AAAA AAAA SAS A SAS SSAS পূৰ্ব্বক ধৰ্ম্মের নামে অবাধ স্ত্রী-পুরুষের মিলন প্রচার করিত। এই দলের প্রভাবে ভীত হইয়া তিব্বত-রাজ বঙ্গদেশ হইতে দীপঙ্করকে আনাইবার জন্ত প্রাণপাত করিয়াছিলেন। বাঙ্গালাদেশ ও উড়িষ্যা উত্তরকালে এই সহজিয়াদের তাতে যাইয়া পড়িয়াছিল। সহজিয়ামত উপেক্ষণীয় নহে। ইহাদের অন্যতম শাখা—বাউল ও কর্তাভুজাদের মতের উচ্চতা আমাদের বিস্ময় উৎপাদন করে। বাউলেরা যদিও চৈতন্তের নাম কীৰ্ত্তন করে, কিন্তু তাহারা চৈতন্তের বিগ্রহ স্বীকার করে না। এক বাউলকে জিজ্ঞাসা করা হইয়াছিল—“তোমার বাড়ীতে কি চৈতন্ত্য-বিগ্রহ স্থাপিত নাই ? উত্তরে সে বলিয়াছিল—“চৈতন্ত যে শূন্ত-মূৰ্ত্তি তাহার আবার বিগ্রহ কি ? এই কথা মহাযান বৌদ্ধদের ধ্যায়েৎ শূন্ত মূৰ্ত্তিম শ্লোকের প্রতিধ্বনির মত শোনায়। নবম শতাব্দীতে আচাৰ্য্য বোধিধৰ্ম্মের শিষ্য বৌদ্ধ-শ্রমণ লোসি তিব্বতে যাইয়৷ বিগ্ৰহ-পূজার বিরুদ্ধে মত প্রচার করিয়াছিলেন। তিনি বলিয়াছিলেন– “পিতল বা কাসার বুদ্ধ আগুনে গলিয়া যায়, কাঠের বুদ্ধ আগুনে দগ্ধ হয়, মাটর বুদ্ধ জলে পড়িলে মিলিয়া যায়। ষে নিজকে পরিত্রাণ করিতে পারে না, সে আমাকে পরিত্রান করিবে কিরূপে ? ঐ যে আকাশচুম্বী পৰ্ব্বত, ঐ দূরগামিনী নদী, এই অদ্ভুত জগৎ এ সমস্ত কি তাহার বিগ্রহ নয় ? কেন তুলি, ছাঁচ ও রং লইয়া বৃথা প্রয়াস পাইতেছ?”* কৰ্ত্তাভজাদের মতও খুবই উচ্চ ; স্ত্রী-পুরুষের ধৰ্ম্মালোচনাকালে তাহারা অবাধ-মিলন প্রচার করিলেও তাহাদের নীতিস্থত্ত এই – “স্ত্রী-হিজ রে, পুরুষ-খোজা, তবে হবি কর্তাভজা ।” এই সব সহজিয়া সম্প্রদায় বাঙ্গালায় উত্তরকালে রাম-বল্লভী, কর্তাভজা, খুলী-বিশ্বাসী, দরবেশী, সাহেব-ধ্বনি, বলরামী, পাচু-ফকিরী প্রভৃতি নান SAAAAAA SAAAAA AAAA AAAA SAAAAAS AAAAAS AAAAA AAAA AAAA AAAA AAAA AAAA AAAAS AAASASAAAAASA SAASAASAASAASAA AAAA AAAA AAASS

  • “Indian Pundits in the Law of snow." P. 44.