পাতা:বঙ্গের জাতীয় ইতিহাস (কায়স্থ কাণ্ড, প্রথমাংশ, রাজন্য কাণ্ড).djvu/৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

[ s ] র্তাহার হরি, হর, ব্ৰহ্মা প্রভৃতি দেবগণের সহিত বীতরাগ বুদ্ধেরও পূজা করিতেন এবং পূৰ্ব্বোক্ত দেবগণের উদেখে বহু শত মন্দির প্রতিষ্ঠাও করিয়াছিলেন। র্তাহীদের প্রতিষ্ঠিত বহু মঠে বেদবেদাস্তাদি উচ্চ হিন্দুশাস্ত্রের সহিত বৌদ্ধ এবং জৈন-শাস্ত্রাদিরও সমভাবে আলোচনা হইত। আমাদের মনে হয় যে, কর্ণফুটর এই সনাতন প্রথা কর্ণাট-ক্ষত্ৰিয়বংশধর সেনরাজবংশ পরিত্যাগ করেন নাই । তাহারা সময় সময় ধৰ্ম্মাচাৰ্য্যগণের প্রভাবে কোন বিশেষ ধৰ্ম্মমতে দীক্ষিত হইলেও অপর ধৰ্ম্ম-সম্প্রদায়ের প্রতি বিদ্বেষভাব পোষণ করিতেন না, তাহারা স্ব স্ব অধিকারে কর্ণাটপ্রথারই অনুবর্তন করিয়া গিয়াছেন। তাই কর্ণাটের চালুক্য-সম্রাট্রগণের ন্তায় তাহার বহুকাল শৈব থাকিলেও পরে পরম-সৌর বা পরম সৌগত বলিয়া পরিচিত হইতে কুণ্ঠ বোধ করেন নাই । সেনবংশ-বিবরণে লিথিয়াছি রাঢ়ের কর্ণাটক্ষত্রিয় সেন-রাজবংশ দক্ষিণাত্য-সংস্রব এককালে ত্যাগ করেন নাই। এখন কর্ণাটক হইতে আবিষ্কৃত বহুসংখ্যক প্রাচীন লেখমালা আলোচনা করিয়া দেখিতেছি যে খৃষ্টীয় ১০ম শতাব্দ হইতে ১১শ শতাব্দমধ্যে চোল, চালুক্য ও যাদব প্রভৃতি কর্ণাটক-রাজগণ বহুবার অঙ্গ, বঙ্গ, কলিঙ্গ, ও গৌড় আক্রমণ করিয়াছেন। এখানকার অধিপতিগণের সহিত র্তাহাদের কতবার শক্রতা ও মিত্রত ঘটিয়াছে, কত গৌড়ব্রাহ্মণ ও এখানকার সম্মানিত কত নাগবংশ কর্ণাট-রাজ্যে গিয়া প্রতিপত্তি লাভ করিয়াছেন । কেবল গৌড় বঙ্গ বলিয়া নহে, উক্ত কর্ণাটক-লেখমালা হইতেই পাইয়াছি যে, আহবমল্প, ত্ৰৈলোক্যমল্ল, বিক্রমাদিত্য ত্রিভুবনমল্ল প্রভৃতি চালুক্যৰূপতিগণ খৃষ্টায় ১১শ শতাব্দে নেপাল হইতে পঞ্চাল পর্য্যস্ত জয় করিয়াছিলেন । র্তাহাদেরই দিগ্বিজয়কালে সম্ভবতঃ তাহাদেরই আত্মীয়-স্বজনগণ হিমালয় প্রদেশে সপাদলক্ষ প্রভৃতি স্থানে প্রতিষ্ঠিত হুইয়াছিলেন, গয়ার শিলালিপি-বণিত অশোকচপ্পদেবকে আমরা সেইরূপ কোন চালুক্যবংশধর বলিয়াই মনে করি। সেনবংশের ন্যায় অার এক কর্ণাটক-ক্ষত্রিয়বংশ খৃষ্টীয় ১১শ শতব্দে মিথিলায় গিয়া অধিপত্য লাভ করিয়াছিলেন, ৩০৪ পৃষ্ঠায় তাহার উল্লেখ করিয়াছি । যখন পূৰ্ব্ব-বঙ্গে সেনরাজ মধুসেন বৌদ্ধধৰ্ম্মে অনুরাগ দেখাইতেছিলেন এবং রাঢ় ও বরেক্সের অধিকাংশ নগর ও বাণিজ্যকেন্দ্রে মুসলমানদিগের প্রভাব প্রসারিত হইতেছিল, সেই সময় নিষ্ঠাবান অনেক রাষ্ট্ৰীয় ব্রাহ্মণ ও কায়স্থ-সন্তান মিথিলাবাসী হইয়াছিলেন । তৎকালে কর্ণাটক হরিসিংহদেব মিথিলার সিংহাসনে অধিষ্ঠিত ছিলেন । র্তাহারই যত্নে স্থানীয় ও সমাগত ব্রাহ্মণদিগের মধ্যে কুলমৰ্য্যাদা স্থাপিত হয় এবং বল্লালসেনের ন্যায় হরিসিংহদেবও পঞ্জীকার নিযুক্ত করিয়া ব্রাহ্মণ ও কায়স্থগণের কুলপরিচয় রক্ষা করিবার ব্যবস্থা করিয়াছিলেন । গৌড়-বঙ্গের স্তায় মিথিলাতেও অস্থাপি পত্নীকারগণ কুল পরিচয় রক্ষা করিয়া আসিতেছেন, সেই কুলপঞ্জীতে আমাদের রাঢ়ীয় ব্রাহ্মণ ও কায়স্থ-সমাজের কতক কতক পূৰ্ব্ব পরিচয় বিবৃত রহিয়াছে। তদ্বারা মনে করিতে পারিতে পারি যে এদেশের কুলাচাৰ্য্যগণও কেহ কেহ মিথিলাবাসী হুইয়। এখানকার আদর্শে মিথিলারাজকে কুলমৰ্য্যাদা-প্রতিষ্ঠায় সাহায্য করিয়াছিলেন। বলা