পাতা:বঙ্গ-সাহিত্য-পরিচয় (দ্বিতীয় খণ্ড).djvu/৭৭৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


প্রাচীন গদ্য-সাহিত্য—মৃত্যুঞ্জয়ের প্রবোধ-চন্দ্রিকা—১৮১০ খৃঃ। যাহা আছে তাহাই হইবে আমার উপায়-চিন্তাতে কি ফল। ব্রাহ্মণের এতাদৃশ সাম্ভনাতে আশ্বাসিত ব্রাহ্মণী নিরুত্তর হইলে পর তৎপুত্র বচনোপন্তাস করিলেন হে জনক আপনি আমার মহাগুরু হন পিতা মাতা আচাৰ্য্য অর্থাৎ শাস্ত্রোপদেশক এই তিন পুরুষ-মাত্রেরই মহাগুরু অর্থাৎ এতত্ৰিতয় আর আর গুরু হইতে অতিশয় গুরু । ইহা ধৰ্ম্মশাস্ত্রে লিখিয়াছেন এবং গুরুলোকদের সাক্ষাতে প্রভুত্ব ও চাপল্য বর্জন করিবেক । অতএব আমাদের আপনকার ইচ্ছাকুবর্তী হওয়াই উপযুক্ত তবে যে কিঞ্চিন্নিবেদন করি সে আতুরত-প্রযুক্ত। আপনি অধ্যাপনা মনন নিদিধ্যাসন অর্থাৎ ধ্যানপরায়ণ হইয়া থাকেন বিষয়-বিস্মরণ-সম্ভাবনা আপনকার এই কারণে হইতে পারে। অতএব আমার সমবেদন কেবল স্মরণার্থ শিক্ষার্থ নয় অপরাধ মার্জনা করিবেন। আমার উপনয়ন-কালতিক্রম হইতেছে যথাকলে পিতা পুত্রের যদি যজ্ঞোপবীত না দেন কালাতিপাত হয় তবে পিতা ব্ৰহ্মহা হন ইহা আমি আপনকার ছাত্রদের পঠন-সময়ে শ্রবণ করিয়াছি। আমি সম্প্রতি অষ্টবৰ্ষ-বয়স্ক হইয়াছি মৌঞ্জী-বন্ধনের অষ্টম বর্ষ মুখ্য কাল সকল কৰ্ম্ম ব্যয়ায়াস-সাধ্য অর্থাৎ ধন-ব্যয় ও শারীরিক চেষ্টসাধ্য। আমি শুনিতে পাই মিথিলা নগরে জনক রাজা বড় যজ্ঞ সমারোহ করিয়াছেন অনেক ব্রাহ্মণ পণ্ডিত সে স্থানে গমন করিতেছেন আপনি তথা গিয়া সভাতে পণ্ডিতমণ্ডলী-মধ্যে ঋক্ যজুঃ সাম অথৰ্ব্বাখ্য চতুৰ্ব্বেদ ও শিক্ষা কল্প ব্যাকরণ নিরুক্ত জ্যোতিষ ছন্দঃশাস্ত্র মন্ত্র অত্ৰি বিষ্ণু হারাত যাজ্ঞবন্ধ্য উশনাঃ অঙ্গির যম আপস্তম্ব সম্বর্ত কাত্যায়ণ বৃহস্পতি পরাশর ব্যাস শঙ্খ লিখিত দক্ষ গৌতম বশিষ্ঠাদি ব্রহ্মর্ষি মহর্ষি রাজর্ষি-প্রণীত স্মৃতিশাস্ত্র ও বেদান্ত সাংখ্য পাতঞ্জল মীমাংসা দ্যায় বৈশেষিক ষড় দর্শনাদি নানা শাস্ত্র বিচার ও সন্দিগ্ধ-প্রশ্ন-নিরূপণাদি করিয়া যাচঞ-ব্যতিরেকে লাভাস্পদ কীৰ্ত্তি পাইতে পরিবেন। পুত্রের এই বাক্য শ্রবণ করিয়া ব্রাহ্মণ কহিলেন হে পুত্র মিথিলাধিরাজ জনক রাজর্ষি অধ্যাত্ম-বিদ্যার পারদর্শী তত্ত্বজ্ঞানীদের এক নিদর্শন-স্থান। তাহার নিকটে আমি সমাদর অবশু পাইব যে হেতুক গুণবানদেরই গুণবন্তেতে প্রীতি হয় নিগুর্ণের গুণীতে প্রেম হয় না। ইহার এই দৃষ্টান্ত মধুপেরা বন হইতে আগমন করিয়া পদ্মেতে প্রণয় করে পদ্মসহবাসী মণ্ডক করে না। আর উত্তমের উত্তমের সমীপেই যাইবেন কেননা অধমের নিকটে গেলে উপহাসাম্পদ হন ইহার কথা। এক স্থানে অনেক বক বসিয়াছিল অকস্মাৎ সেই স্থানে মানসসরোবর-নিবাসী ›ዓ >>